প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের একটি মুহূর্ত। ছবি : সংগৃহীত

পঞ্চগড়ে স্থাপিত হচ্ছে দেশের বৃহত্তম আমের বাগান। ২৫০ একর জমির ওপর ৪টি উন্নত জাতের আম চাষের লক্ষে ‘আমের বাড়ি’ শীর্ষক এ প্রকল্পের মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু করলো কৃষি বাণিজ্য ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান গ্রিনাটিক লিমিটেড।

১৫জুন গুলশানে প্রতিষ্ঠানটির কার্যালয়ে এ প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠিত হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আর্টিসানের চেয়ারম্যান আনিতা গোমেজ, গ্রিনাটিক লিমিটেডের চেয়ারম্যান আলি আহমেদ রাসেল, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম ফেরদৌস, হাইওয়ে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান, যুগ্ম কমিশনার (কর) মোসাদ্দেক হোসেন, নীলফামারি চেম্বার অব কমার্সের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মারুফুজ্জামান কোয়েল, ড. মোস্তাফিজুর রহমান, জালাল আহমেদসহ অনেকেই।

অনুষ্ঠানে গ্রীনাটিক লিমিটেডের প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ কামরুল হাসান বলেন, “এটি এশিয়ার মধ্যে অন্যতম বৃহৎ একটি আমের বাগান হতে যাচ্ছে। এখানে আম গাছের পরিমান হবে ১ লক্ষ। আমাদের জানা মতে, এশিয়ার সর্ববৃহৎ আমের বাগানটি ভারতের রিলায়েন্স গ্রুপের। যাতে আম গাছের সংখ্যা ১ লক্ষ ৩৫ হাজার। তবে, শুধু বাগানই নয়, আমাদের এখানে আরও থাকছে প্রজাপতির বাগান, পক্ষীশালা, ক্যাকটাস গার্ডেন এবং আকর্ষনীয় রিসোর্ট।”

নিজেদের বক্তব্যে, অতিথিরা এ উদ্ভাবনী প্রকল্পের মাধ্যমে গ্রাহকের জন্য ক্যামিকেল মুক্ত ফল ও বিনোদনমূলক সুযোগ-সুবিধাগুলোর প্রশংসা করেন। এ প্রকল্পটি পরবর্তী প্রজন্মকে প্রকৃতি ও সবুজের সান্নিধ্য পেতে সহযোগিতা করবে বলেও মন্তব্য করেন তারা।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম ফেরদৌস বলেন, “যদি গ্রিনাটিক লিমিটেড সফল হতে পারে তাহলে এটি হাজারও মানুষকে ভবিষ্যতে নিরাপদ ফল পেতে সাহায্য করবে।”

গ্রীনাটিক জানায়, এ প্রকল্পের আওতায় চলতিবছর ২০১৯ সালের মধ্যে বিশ হাজার আম গাছ রোপন করা হবে। ২০২১ সালের মধ্যে ১ লক্ষ আম গাছ রোপন সম্পন্ন হবে। পাশাপাশি ২০২৩ সালের মধ্যে প্রকল্পের পাঁচ হাজার মালিকের জন্য ইকো রিসোর্টটিও উন্মুক্ত হবে।