উদ্ধার হওয়া দুই ছাত্রী।

সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলার গাবুরা ইউনিয়নের দুই ছাত্রীকে পাচারকালে তিন পাচারকারীকে আটক করেছে পুলিশ। রোববার রাতে শ্যামনগরের বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে দুই ছাত্রীকে উদ্ধার ও তিন পাচারকারীকে আটক করা হয়।

পাচারের স্বীকার দুই শিক্ষার্থীরা উপজেলার গাবুরা ইউনিয়নের নাপিতখালি গ্রামের খোকার মেয়ে রিফুজা আক্তার (১৪) ও একই গ্রামের কুবাত আলীর মেয়ে সাদিয়া সুলতানা (১৩)। রিফুজা আক্তার স্থানীয় চাদনীমুখা পিজে আলিম মাদ্রাসার ৮ম শ্রেণির ছাত্রী ও সাদিয়া সুলতানা নাপিতখালী প্রাইমারী স্কুলের ৫ম শ্রেণির ছাত্রী।

আটক তিন পাচারকারীরা হলেন নাপিতখালি গ্রামের রুহুল আমীন গাইনের ছেলে আমিনুর রহমান, হযরত গাজীর ছেলে শাহাদত গাজী ও তার বোন করুনা বেগম।

মাদরাসা ছাত্রী রিফুজা আক্তারের মা মাফুজা জানান, রিফুজা বাড়ির মোবাইল নম্বরে ফোন দিয়ে কান্নাকাটি করে বলে, আমাকে বিক্রি করে দিচ্ছে। তোমরা আমাকে বাঁচাও। এরপর তারকাছ থেকে ফোন কেড়ে নেয়। আর যোগাযোগ করতে পারিনি। ফুসলিয়ে তাদেরকে বাড়ি থেকে নিয়ে যায় করুনা বেগম।

ঘটনার বিষয়ে শ্যামনগর থানার এসআই মোস্তফা বলেন, দুই ছাত্রীকে পাচার করা হচ্ছে এমন ঘটনা জানার পর তাদের উদ্ধারের জন্য অভিযান চালানো হয়। অবশেষে রোববার রাতে পাচারের উদ্দেশ্যে শ্যামনগর ত্যাগ করার সময় শ্যামনগর বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে তিন পাচিরকারীকে আটক করা হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে ওই দুই ছাত্রীকে।

তিনি বলেন, তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। কিভাবে আর কোথায় তাদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো সেটি এখনো জানা যায়নি। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।

এ বিষয়ে শ্যামনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাবিল হোসেন বলেন, দুই স্কুলছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পাওয়ার পর তিন পাচারের চেষ্টাকারীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বৈশাখী/সাতক্ষীরা