দুই ছাত্রলীগ কর্মী আটক

আলোচিত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী ফিরোজ আনামকে রক্তাক্ত করার ঘটনায় দুই ছাত্রলীগ কর্মীকে আটক করেছে মতিহার থানা পুলিশ। এর আগে ছিনতাই চেষ্টায় ব্যবহৃত মোটরসাইকেল জব্দ করা হয় মাদারবখ্শ হল থেকে।

আটককৃত অনিক মাহমুদ বনি (২৬) রাবি শাখা ছাত্রলীগের কর্মী ও রাষ্টবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র। পিতা আব্দুল আজিজ এবং মাহফুজুর রহমান মিঠু (২৮) রাজশাহী কলেজ শাখার কর্মী। পিতা মোস্তাকিন পেশায় রংমিস্ত্রি। তারা উভয়ের বাড়ি মহানগরের মতিহার থানার মির্জাপুরে। এর আগে বনি তার যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ফিরোজের হামলাকারীদের বিচার চেয়ে বিবৃতি দেন। তবে তারাই এই ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন পুলিশ।

এ বিষয়ে রাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, আসলে বনি আমাদের কর্মী ছিলো। এখন আর তেমন মিছিল মিটিংয়ে আসে না। ছাত্রলীগের সাথে তার সম্পৃক্ততা নেই তেমন। এর আগে একবার তাকে বহিষ্কার করা হয়েছিলো।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, দুইজনকে আমরা গ্রেফতার করা হয়েছে। একজন আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী অন্যজন রাজশাহী কলেজের। গতরাতে মাদারবখ্শ হল থেকে তাদের ব্যবহৃত মোটরসাইকেল আটক করা হয়। আজ তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি হবে।

মতিহার থানার ওসি হাফিজুর রহমান জানান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘটিত আলোচিত মামলা নং-৩২, তাং- ১৮/১০/২০১৯। ধারা- ৩৪১/৩২৫/৩৯৩/৩০৭ /৩৪ পেনাল কোড। দুজনকে ক্যাম্পাসের বাইরে থেকে আটক করা হয়েছে। তারা ঘটনার স্বীকারোক্তি দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, শুক্রবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ফিরোজকে মাথা ও পায়ে ছুরিকাঘাত করে ছিনতাইয়ের চেষ্টা করা হয়। এরপর আহতকে রাজশাহী মেডিকেলে নিয়ে যাওয়া হলে অবস্থার উন্নতি হয়। এ ঘটনায় বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীসহ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরাও।

এমএ জাহাঙ্গীর/রাবি