কনফারেন্সে ভাষণ দিচ্ছেন প্রফেসর ইউনূস। ছবি : ইউনুস সেন্টার

নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস সম্প্রতি রাশিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্ণরের আমন্ত্রণে ঐতিহাসিক সেইন্ট পিটার্সবার্গে অনুষ্ঠিত ইন্টারন্যাশনাল ফাইনান্স কনফারেন্সে ভাষণ দেবার জন্য রাশিয়া সফর করেন। সম্মেলনের পূর্বে প্রফেসর ইউনূসের দু’টি সংলাপ রেকর্ড করার উদ্দেশ্যে তাঁকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। তাঁর প্রথম সংলাপটি ছিল ব্যাংক অব রাশিয়ার ফার্স্ট ডেপুটি গভর্ণর ড. ক্সেনিয়া ইউদায়েভার সাথে, দ্বিতীয়টি রাশিয়ার প্রাক্তন অর্থ উপ-মন্ত্রী এবং বর্তমানে রাশিয়ান ফেডারেশনের চেয়ারম্যান অব একাউন্টস চেম্বারের উপদেষ্টা আলেক্সেই সাভাতিউগিনের সাথে। সংলাপ দু’টি রেকর্ড করা হয় ব্যাংক অব রাশিয়ার একটি নতুন শিক্ষামূলক প্রকল্পের অংশ হিসেবে যা রাশিয়ার এই কেন্দ্রীয় ব্যাংকটির স্টাফ প্রশিক্ষণে এবং ব্যাংকের সর্বোচ্চ পর্যায়ের নীতি নির্ধারকদের জন্য ব্রীফিং মেটেরিয়াল হিসেবে ব্যবহার করা হবে।

দরিদ্রদের জন্য বিশেষায়িত ব্যাংক সৃষ্টি, ক্ষুদ্রঋণের ভবিষ্যৎ, বেকার তরুণদের উদ্যোক্তায় পরিণত করা ও এক্ষেত্রে ঋণের ভূমিকা -এসব বিষয়ে প্রফেসর ইউনূসের মতামত ও দৃষ্টিভঙ্গী উঠে আসে এই কথোপকথন দু’টিতে।

৪ জুলাই সেইন্ট পিটার্সবার্গে অনুষ্ঠিত রাশিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আন্তর্জাতিক সম্মেলন “ইন্টারন্যাশনাল ফাইনান্সিয়াল কংগ্রেস” (আইএফসি ২০১৯) -এ মূল বক্তা হিসেবে ভাষণ দেন প্রফেসর ইউনূস। পঁচিশটি দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্ণর ও উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা এই সম্মেলনে যোগ দেন।

সম্মেলনে “ফান্ডিং অনট্রাপ্রিনিয়রশীপ – এ ন্যাশনাল প্রায়োরিটি” শীর্ষক একটি প্যানেল আলোচনায় যোগ দিতে প্রফেসর ইউনূসকে আমন্ত্রণ জানানো হয় যেখানে ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোগগুলো (এসএমই) অর্থায়নের বিভিন্ন কৌশল নিয়ে আলোচনা হয়। প্যানেলের বক্তাদের মধ্যে আরো ছিলেন ব্যাংক অব রাশিয়ার সার্ভিস ফর কনজ্যুমার প্রোটেকশন এন্ড ফাইনান্সিয়াল ইনক্লুশন এর প্রধান মিখাইল মামুতা, এসএমই ব্যাংকের পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান দিমিত্রি গলোভানভ, অপোরা রাশিয়ার (অল-রাশিয়ান নন-গভর্ণমেন্টাল অর্গানাইজেশন অব স্মল এন্ড মিডিয়াম সাইজ্ড বিজনেস) প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার কালিনিন, মস্কো স্টক এক্সচেঞ্জের নির্বাহী পরিচালক গেন্নাদী মার্গোলিত, রাশিয়ান ফেডারেশনের অর্থনৈতিক উন্নয়ন বিষয়ক উপ-মন্ত্রী ভাদিম জিভুলিন এবং রাশিয়ান ফেডারেশনের চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির ভাইস প্রেসিডেন্ট এলেনা দিবোভা। সেশনে বিশেষ করে ক্ষুদ্র ও মাঝারী ব্যবসা এবং ব্যক্তি উদ্যোগে সহায়তা বিষয়ক রাশিয়ার জাতীয় প্রকল্প এবং ক্ষুদ্র ও মাঝারী ব্যবসার অর্থায়ন ত্বরান্বিত করতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রোড ম্যাপ পর্যালোচনা করা হয়। বিশেষভাবে মনোযোগ দেয়া হয় সেসব কর্মকান্ডের পরস্পরসংযুক্তির উপর যা ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোগগুলোর জন্য অর্থায়ন বেগবান করবে এবং আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত বিভিন্ন সহায়তা কৌশল রাশিয়ার প্রেক্ষাপটে ব্যবহার করে কীভাবে সেখানকার তরুণ উদ্যোক্তাদেরকে তাদের ব্যবসায়ের প্রথম দিকেই সহায়তা দেয়া যায় তার উপর। প্রফেসর ইউনূস তরুণদের জন্য তাঁর বিশ্বব্যাপী শ্লোগান “আমরা চাকরি খুঁজি না, আমরা চাকরি সৃষ্টি করি – আমরা উদ্যোক্তা” বিস্তারিত ব্যাখ্যা করেন। তিনি বাংলাদেশে সামাজিক ব্যবসা ভেঞ্চার ক্যাপিটাল ফান্ড সৃষ্টির মাধ্যমে বেকার তরুণদেরকে মূলধন সরবরাহ করে তাদেরকে উদ্যোক্তায় পরিণত করতে তাঁর “নবীন উদ্যোক্তা কর্মসূচি”র অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন।

দি সোশালাইজেশন অব মাইক্রোফাইনান্স অর্গানাইজেশন্স: ট্রান্সফরমিং বিজনেস মডেলস থ্রু রেগুলেটরী অ্যাকশন” শীর্ষক আরেকটি সেশনে অংশগ্রহণকারীরা সেসব আইনী পরিবর্তন নিয়ে আলোচনা করেন যা জানুয়ারি ২০১৯ থেকে কার্যকর হয়েছে এবং এসব পরিবর্তন কীভাবে সার্বিকভাবে ক্ষুদ্রঋণ বাজারকে ও ক্ষুদ্রঋণ কর্মকান্ডে নিয়োজিত ব্যক্তি অংশগ্রহণকারীদেরকে প্রভাবিত করছে।

অনুষ্ঠানে প্রফেসর ইউনূস ছাড়াও উল্লেখযোগ্য আরো যে সকল বক্তা অংশ নেন তাঁরা ছিলেন ব্যাংক অব রাশিয়ার ডেপুটি গভর্ণর ভ্লাদিমির চিসতিউখিন, ইকিউভিএএনটিএ-র প্রধান নির্বাহী আন্দ্রেই ক্লেইমেনভ, অল-রাশিয়ান পিপ্ল’স ফ্রন্ট ‘ফর বরোর্য়াস রাইট্স’ -এর প্রজেক্ট ম্যানেজার ইভগেনিয়া লাজারেভা, একাউন্টস চেম্বার অব দ্য রাশিয়ান ফেডারেশন-এর অ্যাসিস্টেন্ট চেয়ারম্যান আলেক্সেই সাভাতিউগিন, ফেডারেল অ্যাসেম্বলি অব দ্য রাশিয়ান ফেডারেশনের ফেডারেশন কাউন্সিল সদস্য এবং বাজেট এন্ড ফাইনান্সিয়াল মার্কেট বিষয়ক ফেডারেশন কাউন্সিল কমিটির ফার্স্ট ডেপুটি চেয়ার নিকোলেই জুরাভলেভ। সেশন সঞ্চালক ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানগুলো কীভাবে আরো দক্ষতার সাথে ক্রমবর্ধমান বিধি-বিধানগুলোর মোকাবেলা করে উন্নততর সেবা প্রদান করতে পারে এবং একই সাথে কর্মসূচির সামাজিক প্রতিশ্রুতি গুলো রক্ষা করতে পারে তা নিয়ে আলোচনা করেন।

প্রফেসর ইউনূস বলেন যে, ক্ষুদ্রঋণকে মজুরী-দিবসের ঋণদাতা (payday lenders) হিসেবে বা ভোক্তা-অর্থায়নের কাজে ব্যবহার করা উচিত নয়। তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, ক্ষুদ্রঋণ হচ্ছে সমাজের একেবারে নীচের তলার মানুষদের বিশেষ করে নারীদের আয়-সৃষ্টিকারী কাজের জন্য অল্প সুদে জামানত-বিহীন ঋণ যা সামাজিক ব্যবসা হিসেবে তাদের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে হবে। ভোক্তা ঋণও ক্ষুদ্রঋণ হতে পারে না। ক্ষুদ্রঋণের জন্য প্রয়োজন পৃথক সামাজিক ব্যবসা – নতুন আইনের অধীনে দরিদ্রদের জন্য বিশেষায়িত ব্যাংক।

প্রফেসর ইউনূসের গ্রন্থ “A World of Three Zeros” এর একটি বিশেষ রাশিয়ান সংস্করণের কপি সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী ২৫টি দেশের সকল প্রতিনিধিকে উপহার হিসেবে তাঁদের কনফারেন্স ব্যাগের সাথে প্রদান করা হয়। এই বিশেষ সংস্করণটি যুগ্মভাবে স্পন্সর করেছে মাইক্রোফাইনান্স অ্যাসোসিয়েশন অব রাশিয়া এবং আওয়ার ফিউচার ফাউন্ডেশান।

রাশিয়ান পার্লামেন্টের প্রাক্তন ডেপুটি স্পিকার মিখাইল নিকোলায়েভ প্রফেসর ইউনূসকে পূর্ব সাইবেরিয়ার ইরকুট্স্ক-এ, যা রাশিয়ার “অবহেলিত এলাকা” বলে পরিচিত, একটি আঞ্চলিক সামাজিক ব্যবসা ফোরাম অনুষ্ঠান করতে আমন্ত্রণ জানান। মিখাইল নিকোলায়েভ, যিনি এই এলাকারই অধিবাসী, এই ফোরামে জাপান, চীন ও আসিয়ানের প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানানোর প্রস্তাব করেন। তিনি আশ্বস্ত করেন যে, প্রফেসর ইউনূস এই ফোরামে প্রধান অতিথি হতে রাজী হলে তিনি ফোরাম অনুষ্ঠানের সকল প্রাতিষ্ঠানিক আয়োজন সম্পন্ন করবেন। প্রফেসর ইউনূস প্রস্তাবিত এই ফোরাম আয়োজনে উভয়পক্ষের জন্য একটি সুবিধাজনক দিন খুঁজে বের করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন।