ওই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার লক্ষ্যে সারা দেশে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। ছবি : সংগৃহীত

ত্রিশ লক্ষ গণশহীদকে চিহ্নিত করতে সারা দেশে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে বলে সংসদ অধিবেশনে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৯ জুন বুধবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে এ তথ্য জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের সদস্য অসিম কুমার উকিলের এক প্রশ্নের লিখিত উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সারা দেশে ত্রিশ লক্ষ গণশহীদ চিহ্নিত করা এখনো সম্ভব হয়নি। আগামীতে গণশহীদদের নাম-পরিচয় চিহ্নিত করার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে।’

এ সময় বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী মুক্তিযোদ্ধাদের তথ্য সংগ্রহ করে ডাটাবেজ প্রস্তুত করে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের প্রকাশিত তালিকার বাইরে যদি কোনো মুক্তিযোদ্ধা থাকেন তা চিহ্নিত করে ওই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার লক্ষ্যে আমরা সারা দেশে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে।

প্রশ্নোত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের প্রকাশিত তালিকার বাইরে যদি কোনো মুক্তিযোদ্ধা থাকেন তা চিহ্নিত করে ওই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার লক্ষ্যে আমরা সারা দেশে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। ১৯৭১ সালে ৯ মাসব্যাপী স্বাধীনতা যুদ্ধে সারা দেশে ত্রিশ লক্ষ গণশহীদ চিহ্নিত করা এখনো সম্ভব হয়নি। ভবিষ্যতে এ লক্ষ্যে কার্যক্রম গ্রহণ করার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে।’

এছাড়া শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ও অন্যান্য মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধিস্থল সংরক্ষণ ও উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় কার্যক্রমে সারা দেশে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ও পরবর্তী সময়ে পরলোকগত মুক্তিযোদ্ধাদের ২০ হাজার সমাধিস্থল সংরক্ষণ করা হবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।