মারাজান আক্তার প্রিয়া।

মাথায় গুরুতর চোট পেয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন চলতি এসএ গেমসে কারাতের একটি ইভেন্টে এরই মধ্যে বাংলাদেশকে একটি স্বর্ণ এনে দেওয়া মারাজান আক্তার প্রিয়া।

কাঠমান্ডুতে টুর্নামেন্টের চতুর্থদিন বুধবার ১২টার দিকে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কারাতের দলগত কুমির সেমি-ফাইনাল লড়াইয়ে নামে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ দলে ছিলেন আগের দিনের স্বর্ণজয়ী হুমায়রা আক্তার অন্তরা, মারজানা আক্তার প্রিয়া ও প্রথম দিন রৌপ্য জেতা মাউনজেরা বন্যা।লড়াইয়ে নামতেই শ্রীলঙ্কার বান্দারা মারজানের পেটে আঘাত করে।

চিকিৎসা নিতে হয় তাকে। এরপর বান্দারা তার মুখে আঘাত করে। ঠোঁট ফেটে রক্ত বেরোয়। আবার চিকিৎসা নেন। চিকিৎসা নিয়ে টলতে টলতে আবার ম্যাটে আসেন। বেশ কিছুক্ষণ লড়াই করেন। এ সময় বান্দারার একটি আঘাত মারজানের মাথায় লাগে। ম্যাচ শেষ হতে তখনও ৪৭ সেকেন্ড বাকি। টলতে থাকেন মারজান।

রেফারির নির্দেশে মেডিকেল টিম আবার ম্যাটে ওঠে। প্রিয়ার রক্তচাপ মাপে, আইস ব্যাগ ঠোঁটে লাগায়। কিন্তু প্রিয়া ওঠে দাঁড়াতে পারছিলেন না।

মেডিকেল টিমের হাতে ভর দিয়ে ম্যাট ছাড়েন। একটা সময় জ্ঞান হারান। ভেন্যুতে উপস্থিত ডাক্তাররা নানা চেষ্টা করেও তার জ্ঞান ফেরাতে ব্যর্থ হওয়ায় অ্যাম্বুলেন্সে নিকটস্ত হাতপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে নেওয়া হয় সরকারি হাসপাতালে।

মঙ্গলবার টুর্নামেন্টের তৃতীয় দিন কারাতে মেয়েদের কুমি ইভেন্টে অনূর্ধ্ব-৫৫ কেজির ফাইনালে পাকিস্তানের কৌসরা সানাকে ৪-৩ পয়েন্টে হারিয়ে স্বর্ণ জেতেন মারজানা।

মিজানুর রহমান/জবি