ডেঙ্গু ভাইরাস বহন করা এডিস মশা। ছবি: সংগৃহীত

ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে চলতি বছরের জুন মাস থেকে আগস্ট, এই ৩ মাসে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৭ জন মারা গেছেন বলে তথ্য পাওয়া গেছে।

১৫ আগস্ট বৃহস্পতিবার বিকেলে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সর্বশেষ মৌসুমী আক্তার (২৫) নামের এক রোগীর মৃত্যু হয় ঢাকা মেডিকেলেই। মৌসুমী পেশায় পোশাক শ্রমিক ছিলেন।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে মৌসুমীর মৃত্যু হয়। তার বাড়ি পিরোজপুর জেলার ভান্ডারীয়ায়। তিনি আগারগাঁওয়ের তালতলার মোল্লাপাড়ায় থাকতেন।

মৌসুমীর স্বামী মো. মামুন জানান, মঙ্গলবার জ্বরে আক্রান্ত হন মৌসুমী। গতকাল শ্যামলী টিবি হাসপাতালে পরীক্ষা করালে তার ডেঙ্গু ধরা পড়ে। এরপর সেখানেই ভর্তি করানো হয় তাকে।  অবস্থার অবনতি হলে সেখান থেকে আজ তাকে আইসিতে নিয়ে যেতে বলা হয়। পরে সকালে তাকে সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে নেওয়া হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে জরুরি বিভাগের আইসিইউতে নেওয়ার সময় তার মৃত্যু হয়।

ঢামেক হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. নাসির উদ্দিন জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ১৩১ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছেন। এখনো আমাদের হাসপাতালে সর্বমোট ৬০১ জন রোগী ভর্তি আছেন। প্রতিদিনই রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি যাচ্ছে। এবং প্রতিদিনই কম বেশি কেউ না কেউ এ রোগে আক্রান্ত এ ভর্তি হচ্ছে। আগের তুলনায় ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা কিছুটা হলেও কমছে।

তিনি আরো জানান, জুন মাস থেকে এ পর্যন্ত ঢামেকে ২৭ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী মারা গেছে। তবে তাদের নমুনা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে। রিপোর্ট পেলে জানা যাবে তারা ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে না অন্য কোনো রোগ ছিলো তাদের।

আজকের পত্রিকা/কেএফ