চন্দ্র বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন করবে মার্কিন দূতাবাস। ছবি : সংগৃহীত

প্রায় ৫০ বছর আগের কথা, যখন প্রথম চাঁদের মাটি স্পর্শ করেছিলো মিশন অ্যাপোলো ১১ এর দলপতি মহাকাশচারী নীল আর্মস্ট্রং এবং তার সহচর এডুইন অল্ড্রিন জুনিয়র। ঈগল নামের ল্যান্ডিং ক্রাফটের কেবিন থেকে নয় তাকের সিঁড়ি বেয়ে অ্যাপোলো ১১-এর কমান্ডার নিল আর্মস্ট্রং নেমে এলেন। তার ক্যামেরা আপন গ্রহের মানুষের কাছে অবিশ্বাস্য সব ছবি ধারণ করছে। তিনিই চাঁদের বুকে পা রাখা প্রথম মানুষ।

তখন নিউইয়র্ক সময় রাত ১০টা ৫৬ মিনিট। বিস্মিত আর্মস্ট্রং বললেন, মানুষের একটি ছোট পদক্ষেপ মানবজাতির একটি বিশাল লাভ।

১৯ মিনিট পর এডউইন অলড্রিন জুনিয়র চাঁদের পিঠে আর্মস্ট্রংয়ের সঙ্গে মিলিত হলেন এবং চিত্কার করে বলে উঠলেন ‘সুন্দর সুন্দর সুন্দর, কী চমত্কার নির্জনতা!’

১৯৬৯ সালের ২০ জুলাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাপোলো ১১ মিশন চাঁদে সর্বপ্রথম মানুষ পাঠাতে সফল হয়। পরবর্তীতে যদিও ৩ বছরের মধ্যে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত মোট ৬টি অ্যাপোলো মিশন পরিচালিত হয় যেখানে আরো ১০জন মহাকাশচারী চাঁদের মাটিতে পৌঁছে।

কিন্তু প্রথমবারের মতো চন্দ্র বিজয়ের ইতিহাস কখনো মুছে যাওয়ার নয়। এই অর্জনের পেছনে যাদের নিরলস প্রচেষ্টা ছিলো তাদেরকে স্মরণ করা এবং চাঁদ ও  মঙ্গল গ্রহের ভবিষ্যত গবেষণা অনুপ্রাণিত করতে চন্দ্র বিজয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন করবে ঢাকায় অবস্থিত মার্কিন দূতাবাস।

এই উদযাপনের অংশ হিসেবে ঢাকাতে বেশ কিছু ইভেন্টের আয়োজন করেতে যাচ্ছে আমেরিকান দূতাবাস। চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, রোবোটিক্স প্রযুক্তির ওপর প্রেজেন্টেশন, এডুকেশন ইউএসএ প্রোগ্রামের আওতায় এসটিইম এডুকেশন এবং ‘নাসার সঙ্গে অভিজ্ঞতা’ নামে একটি ভার্চুয়াল সেশন আয়োজন করা হবে।

২৩ জুলাই মঙ্গলবার চন্দ্র বিজয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে ইভেন্টগুলো অনুষ্ঠিত হবে। অনলাইনে প্রি-রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে এসব ইভেন্টে অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়া যাবে। প্রি-রেজিস্ট্রেশনের শেষ তারিখ ১৭ জুলাই।

প্রি-রেজিস্ট্রেশন লিংক : https://www.surveymonkey.com/r/Y3Z8TQT

আজকের পত্রিকা/কেএইচআর/