জামালপুরের ডিসি
ছবি: সংগৃহীত

নারী অফিস সহকারীর সঙ্গে জামালপুরের জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের আপত্তিকর ভিডিও প্রকাশের বিষয়ে শনিবার সকালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকেও বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলে মন্তব্য করেন এই অতিরিক্ত সচিব।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আব্দুল গাফ্ফার খান বলেন, বিভাগের কর্মকর্তারা প্রাথমিকভাবে বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন। এবং বিভিন্ন বিভাগ থেকে তদন্ত হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, এক নারী অফিস সহকারীর সঙ্গে জামালপুরের জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের আপত্তিকর ভিডিও প্রকাশের বিষয়ে অবগত আছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। বিভাগের কর্মকর্তারা প্রাথমিকভাবে বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন। অফিস খুললে বিষয়টি তদন্তের জন্য কমিটি গঠন করবে মাঠ প্রশাসনের দেখাশোনার দায়িত্বে থাকা মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

এর আগে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমসহ ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে জামালপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) আহমেদ কবীরকে জেলা প্রশাসন অফিসের এক নারী অফিস সহকারীর সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখা গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে ভিডিওটি বানোয়াট বলে দাবি করেছেন ডিসি কবীর।

৪ মিনিট ৫৭ সেকেন্ডের ওই ভিডিওটিতে যে কক্ষটি দেখা যায়, সেটি জামালপুরের জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের অফিস কক্ষে তার চেয়ারের ঠিক ডান পাশের ছোট একটি কক্ষ। ছোট এই কক্ষে একটি ছোট খাট বসানো হয়েছে। ভিডিওটিতে যে পুরুষকে দেখা যায়, তিনি জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর বলে দাবি করা হচ্ছে। আর যে নারীকে দেখা যাচ্ছে তিনি এই জেলা প্রশাসকের মাধ্যমেই সম্প্রতি নিয়োগ পাওয়া একই অফিসের একজন এমএলএসএস বা পিয়ন।