বজ্রপাত। ছবি: সংগৃহীত

ঠাকুরগাঁও জেলায় বজ্রপাতে চারজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ১০ জন। মঙ্গলবার বিকাল ৩টার দিকে জেলার বালিয়াডাঙ্গী ও রাণীশংকৈল উপজেলায় পৃথক বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন-রাণীশংকৈল উপজেলার আলসেয়া গ্রামের মনছুর আলীর ছেলে আবু সাঈদ (১৭), একই গ্রামের রবিউল ইসলাম(২৮), জগদল গ্রামের মৃত বাচা মোহাম্মদের ছেলে নুরুল ইসলাম (৪৩) ও বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বড়পলাশবাড়ী ইউনিয়নের দালালবস্তী গ্রামের আব্দুল জব্বার (৪৫)।

আহতদের মধ্যে দুজনকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতাল এবং বাকি আটজনকে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি মোসাব্বেরুল হক জানান, বড়পলাশবাড়ী ইউনিয়নের সরকারবস্তী গ্রামের ভাঙ্গারু নামে এক ব্যক্তির আমবাগানে পাহাড়ার কাজে নিয়োজিত ছিলেন রবিউল ইসলাম ও নুরুল ইসলাম।

বজ্রপাতে রবিউল ঘটনাস্থলে এবং নুরুল ইসলাম হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান।

এদিকে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার দালালবস্তী গ্রামে মাঠে কাজ করার সময় আব্দুল জব্বার বজ্রপাতে ঝলসে গিয়ে মারা যান।

রানীশংকৈল উপজেলার আলসিয়া এলাকায় বজ্রপাতে আবু সাঈদ(১৭) নামে এক স্কুলছাত্র মারা যায়। নিহত আবু সাঈদ ওই এলাকার মনসুর আলীর ছেলে।

রাণীশংকৈল থানার ওসি আব্দুল মান্নান জানান, প্রতিবেশী আব্দুল খালেকের সঙ্গে মাঠে হাঁস আনতে গিয়েছিলেন আবু সাঈদ। বজ্রপাতে তিনি অকস্মাৎ ঝলসে যান এবং ঘটনাস্থলেই মারা যান।

আজকের পত্রিকা/খোকন/ঠাকুরগাঁও