পল্লীবিদুৎ সমিতি।ছবি:সংগৃহীত
নেত্রকেনার দুর্গাপুর পল্লীবিদুৎ সমিতি হতে টাকা ছাড়া মিলেনা কোন বিদুৎ সংযোগ। বিদুৎ গ্রাহকগন বিদুৎ আনতে গেলে টাকা ছাড়া আনতে পারে না বিদ্যুৎ।এমন অভিযোগ জানালেন এলাকার প্রায় দুইশত ভুক্তভোগী বিদ্যুৎ গ্রাহক। উপজেলা চন্ডিগড় ইউনিয়নের বানিয়াপাড়া গ্রামের ১৮৫ জন বিদুৎ গ্রাহকের  কাছ থেকে জন প্রতি ২শত টাকা ও দ্রুত সময়ে মিটার পাওয়ার জন্য ৫ থেকে ৭ হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করে মোট ৯ লাখ ৬২ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন বিদুৎ বিভাগের অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারী।
এ ব্যাপারে ২৬ মে উক্ত গ্রামের আবুল কালামসহ প্রায় ১৫০ জন ভুক্তভোগী গ্রামবাসী স্বাক্ষরীত নেত্রকোনা জেলাপ্রশাসক এর কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এ ব্যাপারে চন্ডিগড় ইউনিয়নের সুশিক্ষিত ও সুযোগ্য চেয়ারম্যান মোঃ আলতাবুর রহমান কাজল বিএসসি এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান “প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগ সবার ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ” আমরা জানি বিদুৎ সংযোগের জন্য কোন টাকা লাগে না। কিন্তু বাস্তবে এখানে চিত্রটি ভিন্ন। বিদুৎ বিভাগ ঘুষের আখরায় পরিনত হয়েছে।
পল্লীবিদুৎ সমিতির ডিজিএম মোঃ আবুল কালাম আজাদ জানান পল্লীবিদুৎ বিভাগ কারো কাছ থেকে বিদুৎ সংযোগের নামে কোন টাকা পয়সা নেয় না। আনিত অভিযোগটির কোন সত্যতা নেই। উল্টো তাদের লোকজন স্থানীয়ভাবে দালাল সৃষ্টি করে বিভিন্ন কৌশলে গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা উত্তোলন করে থাকে বলে পাল্টা  অভিযোগ করেন।
আজকের পত্রিকা/দেবল চন্দ্র দাস/নেত্রকোনা/রাফাত