ঝড়ে লণ্ডভণ্ড শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

সাতক্ষীরার তালায় আকষ্মিক ঝড়ে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে দশটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে কমপক্ষে দুইশ কাচা ও টিনের ঘরবাড়ি। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তালা আলীয়া মাদরাসা। মাদরাসার তিনটি প্রশাসনিক ভবনের চারটি রুমের টিনের চাল উড়ে গেছে।

মাদরাসার অধ্যক্ষ আবুল ফজল মো. নূরুল্লা জানান, সোমবার বিকেলের আকষ্মিক ঝড়ে মাদরাসার প্রশাসনিক ভবনের চারটি রুমের টিনের ছাউনি উড়ে গেছে। ১৯৭১ সালে মাদরাসাটি প্রতিষ্ঠার পর দৃশ্যমান কোন উন্নয়ন হয়নি। জাতীয় ও স্থানীয় সরকার পরিষদ নির্বাচনে ভোট কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হয় মাদরাসাটি তবে ভোট কেন্দ্র সংস্কার কোটাতেও নাম রাখা হয় না।

তিনি বলেন, মাদ্রাটিতে প্রায় চার শতাধিক শিক্ষার্থী রয়েছে। ফলাফলও খুব ভালো। দ্রুত মাদরাসাটি সংস্কার করে পাঠদান উপযোগী করতে কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

তালা সদরের রহিমাবাদ গ্রামের ইমরান হোসেন জানান, ঝড়ে মানুষের টিনের তৈরী ঘরবাড়ি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। রাস্তার উপর গাছ উপড়ে পড়েছে।

তালা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান বলেন, তালা সদর, খলিলনগরসহ বিভিন্ন এলাকায় ঝড়ে দশটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠাণের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া দুইশ ঘরবাড়ির টিনের ছাউনি উড়ে গিয়ে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরুপণ ও তালিকা প্রস্তুত করা হচ্ছে জানিয়ে তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরিন বলেন, দশটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠাণের ছাউনি উড়ে গেছে। সেগুলোর তালিকা প্রস্তুত করে জেলায় পাঠানো হচ্ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠাণগুলো সংস্কার করা কঠিন কেননা টিন থাকে না। তবে স্থানীয়ভাবে সংস্কার করার উদোগ নেওয়া হয়েছে। এছাড়া পরবর্তীতে কোন বরাদ্ধ আসলে সংস্কার কার্যক্রম করা হবে।

বৈশাখী/সাতক্ষীরা