বৃষ্টির দিনে পছন্দের খাবার। ছবি : সংগৃহীত

চলছে আষাঢ় মাস। এ সময় হঠাৎ করেই মেঘ এসে সূর্যকে ঢেকে দিয়ে যায়। উত্তাপ কমে আসে। বাতাসে বৃষ্টির ঝিরিঝিরি গান শোনা যায়। শরীর ও মনে এক অমায়িক সুন্দর পরিবর্তন অনুভব হয়। তাই বৃষ্টির ভরপুর স্বাদ নিতে কেউ হয়তো ব্যালকনিতে চা নিয়ে বসে পড়ে। কারো কারো কাছে বৃষ্টি উৎসবের মতো।

এই উৎসবে ভেজা ভেজা আবহাওয়ায় ভুনা খিচুড়ি, সঙ্গে ডিম কিংবা ইলিশ ভাজা আর একটুখানি আচার না থাকলে আড্ডাটা ঠিক জমে উঠে না। তাই বৃষ্টিতে আনন্দ দ্বিগুণ করতে অনেকেই পছন্দের খাবার রান্না করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। চলুন জেনে নেওয়া যাক আষাঢ়ের এই ঝুম বৃষ্টিতে যে ৮টি মুখরোচক খাবার খেতে পারেন-

ভুনা খিচুড়ি

ভুনা খিচুড়ি। ছবি : সংগৃহীত

আকাশে মেঘ এসে সাড়া দিলে প্রথমেই যে খাবারটির কথা মাথায় আসে, সেটি হচ্ছে ভুনা খিচুড়ি। বাইরে ঝরঝরিয়ে বৃষ্টি হচ্ছে, এমন সময় খাবারের পাতে যদি কেউ গরম গরম খিচুড়ি তুলে দেয়, তাহলে ভোজন রসিকদের আর কিছু চাওয়ার থাকে না। খিচুড়ির সাথে হালকা ঝোল, কয়েক টুকরো মাংস, একটা পেঁয়াজ, লেবু অথবা খানিকটা আচার ও সালাদ। ব্যাস! সামান্য আয়োজনেই উপভোগ করা যায় বৃষ্টির ভরপুর আনন্দ।

ইলিশ ভাজা

ইলিশ ভাজি। ছবি : সংগৃহীত

ইলিশ এমন একটা মাছ যেটা যে কোনো পরিস্থিতিতেই খেতে ভালো লাগে। আর যদি হয় বৃষ্টি ভেজা মেঘলা দিন, তাহলে আনন্দের আর সীমা থাকে না। একবার ভাবুন তো, এই ইলিশ মাছ গরম তেলে ভাজা হচ্ছে, প্লেটে তুলে দেওয়ার পর মাছের গা বেয়ে গরম তেল চুইয়ে চুইয়ে পড়ছে। বাইরে বাদল ধারা। এই বর্ষায় ইলিশ শুধু ভাজা হিসেবেও অমৃত। তবে কেউ যদি ভুনা খিচুড়ির সাথে খান, তাহলে স্বাদ কম নয় বরং বাড়তি মনে হবে।

স্কোয়াশ স্যুপ

স্যুপ। ছবি : সংগৃহীত

বৃষ্টির শীতল দিনে কিছুটা উষ্ণতা জোগাতে পারে পুষ্টিগুণে ভরপুর স্যুপ। কিন্তু সব ধরনের স্যুপ স্বাস্থ্যের জন্য সব সময় ভালো নয়। বৃষ্টির দিনে স্কোয়াশের স্যুপ খাওয়া যেতে পারে। এতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও ফলেট নামের উপাদান আছে, যা বৃষ্টির দিনের অবসাদ কাটাতে পারে।

চা

বৃষ্টিতে চা খেতে খেতে বই পড়া। ছবি : সংগৃহীত

আষাঢ়ের ঝুম বৃষ্টি। গুড়িগুড়ি বৃষ্টিফোঁটা জানলা দিয়ে গায়ে এসে পড়ছে। হাতের পাশে ভাপ ওঠা এক কাপ চা বা কফি, সঙ্গে গল্পের বই কিংবা পুরোনো দিনের কিছু বাংলা গান- নিশ্চয়ই মন্দ লাগবে না। গ্রিন টি বা আদা চা শরীরকে রাখবে চনমনে। চায়ে রয়েছে অনেক বেশি অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। তাছাড়া অনলাইনের দুনিয়াকে বিদায় দিয়ে প্রিয়জনের সঙ্গে বসে বৃষ্টি দেখতে দেখতে এক কাপ চা বা কফির কাপে চুমুক দেওয়ার সময়টাও কিন্তু অসাধারণ।

নুডুলস

নুডুলস। ছবি : সংগৃহীত

এই বৃষ্টিতে আবহাওয়া বেশ ঠান্ডা হয়ে আসে। এমন আবহাওয়ায় স্বাদে একটু ভিন্নতা এলে মন্দ কী! তাই স্বাদের ভিন্নতা আনতে বৃষ্টির দিনে ঝটপট রান্না করে ফেলতে পারেন নুডলস। নুডলসের সঙ্গে ডিম, পেঁয়াজ, টমেটো আর ধনেপাতা মেশালে স্বাদ যেমন বাড়ে, তেমনই গন্ধটাও হয় জিভে জল আনার মতো। আর নুডলস ঝটপট করা যায়। এছাড়া এমন আবহাওয়ায় এই খাবার পেটের জন্যও উপকারী।

মুড়ি-চানাচুর

মুড়ি চানাচুর। ছবি : সংগৃহীত

বৃষ্টির দিনে আড্ডা জমাতে অনেকের কাছে মুড়ি চানাচুর যেন এক স্বর্গীয় খাবার। বর্ষার দিনে বিকালে তেল মাখানো মুড়ি, সাথে পেঁয়াজ আর মরিচ কাটা, আর যদি সামান্য বাদাম চানাচুর মিক্সড করা হয়, তাহলে বৃষ্টির দিনটি কাটবে আরও উচ্ছলতায়, আনন্দে।

আজকের পত্রিকা/কেএইচআর/সিফাত