আব্দুর রহমান (১০) হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি থানার ধুরাইল গ্রামে ষষ্ঠ শ্রেনীর শিক্ষার্থী আব্দুর রহমান (১০) হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

২৫ মার্চ সোমবার সকাল সাড়ে দশটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রিয় শহীদ মিনার পাদদেশে পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়।মানববন্ধনে নিহত আব্দুর রহমানের ভাই মমিনুল ইসলাম বলেন, ‘আমার ভাইয়ের গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। বুকে-পিঠে ছুরিকাঘাত করে তাকে ক্ষত বিক্ষত করে দিয়েছে।

খুনের ঘটনার পর ১০ দিন পার হলেও কোনো আসামী আটক হয়নি।’মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজির (আইআইটি) সহযোগী অধ্যাপক মো. ফজলুল করিম পাটোয়ারী বলেন, ‘একটি ১০ বছরের শিশুকে গলা কেটে হত্যা করা ঘৃণ্য ও মানবতাবিরোধী অপরাধ।

দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হলে এমন ঘটনা শিশুদের নিরপত্তাহীন করে তুলবে।’এ সময় সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট জাবি শাখার সভাপতি সুস্মিতা মরিয়ম বলেন, ‘আমরা এমন একটি সমাজে বাস করি যেখানে প্রতিনিয়ত নারী ও শিশুদের ওপর নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। আজকে আমার ভাই খুন হয়েছে, কালকে হয়তো আপনার বোন খুন হবে। তাই বলছি এ ধরণের হায়নাদের বিরুদ্ধে সবাই রুখে দাড়ান।’মানববন্ধনে মেহেদী আল মাহমুদের সঞ্চালনায় সুব্রত সাহা, মাসুক হেলাল অনীক প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বক্তারা উক্ত ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানান।উল্লেখ্য, গত ১৫ মার্চ (শুক্রবার) জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি উপজেলার ধুরাইল গ্রামের রেজাউল ইসলামের ছোট ছেলে আব্দুর রহমানকে (১০) শিশুকে নিশংসভাবে হত্যা করা হয়। শুক্রবার রাত নয়টার দিকে গ্রামের একটি পরিতাক্ত স্কুল থেকে শিশুটির গলা কাঁটা লাশ উদ্ধার করা হয়।

ইমন মাহমুদ/জাবি