আট দিন ধরে হাসপাতালের নিবিড় পর্যবেক্ষণে আছেন ছোট পর্দার অভিনয়শিল্পী ও মডেল প্রিয়াঙ্কা জামান। প্রথম ছয় দিন তিনি পুরোপুরি অচেতন ছিলেন। কৃত্রিম উপায়ে তাঁর শ্বাস–প্রশ্বাস চালু রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। বর্তমানে শারীরিক অবস্থার যথেষ্ট উন্নতি হয়েছে। গত বুধবার লাইফ সাপোর্ট খুলে নেয়া হয়েছে তার। তার শারীরিক অবস্থা কিছুটা উন্নতির দিকে, সবাইকে চিনতে পারছেন, কথা বলছেন এবং স্বাভাবিক খাবারও গ্রহণ করতে পারছেন বলে সাংবাদিকদের জানালেন প্রিয়াঙ্কা জামানের বড় বোন লিজা জামান।

বৃহস্পতিবার জানানো হলো, প্রিয়াঙ্কা সুস্থ হয়ে উঠছেন। এমন উন্নতি অব্যাহত থাকলে আগামী দু-এক দিনের মধ্যে তাকে কেবিনে স্থানান্তর করা হবে।

লিজা জামান বলেন, ‘স্রষ্টার কাছে অসংখ্য শুকরিয়া। তিনি আমার বোনের দিকে মুখ তুলে তাকিয়েছেন। আমরা হতাশ হয়ে পড়ছিলাম। যে কোনো সময খারাপ কোনো খবর আসবে এমনটিই ভাবছিলাম। কারণ প্রিয়াঙ্কা আমাদের চিনতে পারছিল না, কথাও বলছিল না। এখন সে আমাদের চিনতে পারছে, কথাও বলছে।’

প্রিয়াঙ্কা জামান ২০১৩ সালে বিটিভির চলচ্চিত্রের গান নিয়ে অনুষ্ঠান ‘ছায়াছন্দ’ উপস্থাপনার মধ্য দিয়ে মিডিয়ায় পা রাখেন। এরপর অনেক নাটকে অভিনয় করেন। বিভিন্ন পণ্যের বিজ্ঞাপনচিত্র ও জনপ্রিয় সংগীতশিল্পীদের গানের মিউজিক ভিডিওতে মডেল হয়েছেন। বুলবুল ললিতকলা একাডেমিতে নাচ শেখেন তিনি।

বেশ কিছুদিন আগে তার রক্তে মারাত্মক সংক্রমণ দেখা দেয়। গত ২৬ সেপ্টেম্বর তাকে  রাজধানীর ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি হলে তাকে স্কয়ার হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি করা হয়।