রামগতি উপজেলার বিচ্ছিন্ন চর আবদুল্লায় মেঘনা নদীর জোয়ারের পানিতে ডুবে ৩৭৫টি ভেড়ার মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

রোববার দুপুরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে চর আবদুল্লাহ ইউনিয়নের নতুন চর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় ৪০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে খামারিদের দাবি।

জানা গেছে, প্রায় ছয় বছর আগে কয়েকজন যুবক চর আবদুল্লাহ ইউনিয়নের নতুন চর এলাকায় ভেড়ার খামার করেন। কিন্তু ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বৃষ্টি ও নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে তাদের খামারের ৩৭৫টি ভেড়া ভেসে গিয়ে মারা যায়। প্রত্যেকটি ভেড়া ৯ হাজার থেকে ১২ হাজার টাকা পর্যন্ত মূল্যের ছিল বলে দাবি তাদের।

ক্ষতিগ্রস্ত ভেড়া খামারিরা হলেন রামগতি পৌরসভার বাসিন্দা আবুল কাশেম, জসিম, হাসান, আবুল কালাম, নিজাম, দিদার, জামাল, মঞ্জু ও নুরনবী।

খামারি আবুল কাশেম জানান, তাদের ৩৮১টি ভেড়ার মধ্যে ৩৭৫টি মারা গেছে। ভেড়াগুলো মরে ৪০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

চর আবদুল্লাহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল হোসেন মঞ্জুর বলেন, ভেড়া পানিতে ডুবে মারা যাওয়ার ঘটনা শুনেছি। তবে কতটি মারা গেছে তা জানা যায়নি।

রামগতি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আব্দুল মোমিন বলেন, ঘটনাটি কেউ আমাকে জানায়নি। তবে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাকে এ ব্যাপারে খোঁজ নেয়ার জন্য বলা হয়েছে।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে লক্ষ্মীপুরে টানা বৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। মেঘনা নদীতে ২-৩ ফুট পানির উচ্চতা বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে চরাঞ্চলসহ নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।