জৈন্তাপুরে লোকালয়ে অজগর

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের দলইপাড়া গ্রামে একটি অজগর সাপ আটক করে গ্রামবাসী। বিষয়টি তাৎক্ষনিক ভাবে সারী বন বিটকে জানালে সাপ উদ্ধারে অনিহা প্রকাশ করে। অবেশেষে সংবাদকর্মীর সহযোগিতায় পুলিশ অজগর সাপটি উদ্ধার করে খাদিম উদ্যানের কর্মীর নিকট হস্তান্তর করা হয়।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় ১৪ সেপ্টেম্বর শনিবার দুপুর ১২টায় কৃষকের বাড়ীর আঙ্গীনায় জঙ্গল পরিস্কার কাজ করেছেন উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের দলইপাড়া গ্রামের বাসিন্ধা হাজী আরফান আলীর ছেলে রফিক আহমদ (৫০)। জঙ্গল পরিস্কারের একপর্যায় তিনি একটি অজগর (উলুবুড়া) সাপ দেখতে পান।

সাপ দেখে তিনি চিৎকার করলে গ্রামের বিলাল আহমদ, আব্দুল কুদ্দুছ সহ এলাকার লোকজন ছুটে এসে অজগর সাপটি না মেরে আটক করে। বিষয়টি স্থানীয় লোকদের মাধ্যমে সারী বনবিট কর্মকর্তার কাছে সংবাদ দিলে তিনি কোন কর্ণপাত করেননি। বন বিট কর্মর্কতা বিষয়টি অনিহা প্রকাশ করায় এলাকাবাসী স্থানীয় সংবাদকর্মীদের সহযোগিতা চান।

সংবাদকর্মীরা বিষয়টি সারী বনবিটের কর্মকর্তা আক্তারুজ্জামানকে জানালে তিনি প্রতিবেদককে জানান, সাপটি মেরে ফেলুন কিংবা কোন জঙ্গলে ছেড়ে দিন, সাপটি চলে যাবে, অযথা ঝামেলা করার প্রয়োজন নাই। অর্থাৎ আটককৃত অজগর সাপটি উদ্ধারে কোন ব্যবস্থা গ্রহন করতে তিনি রাজি নন, বরং সাপটি হত্যার করার পরামর্শ দেন।

এদিকে স্থানীয় সংবাদকর্মী কোন উপয়া না পেয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানা ও খাদিম নগর উদ্যানকে সংবাদ দেয়। সংবাদ পেয়ে অফিসার ইনচার্জ শ্যামল বনিক তাৎক্ষনিক ভাবে অজগর সাপটি উদ্ধার করতে এ. এস. আই হরিধনকে ঘটনা স্থলে পাঠান। বিকাল ৫টায় হরিধন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ধলইপাড়া গ্রামে গেলে এলাকাবাসী অজগর সাপটি পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

অপরদিকে অজগর সাপ আটকের বিষয়টি খাদিম নগর উদ্যান কর্তৃপক্ষ সংবাদ পেয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদের হিসাব সহকারী আব্দুল কাদির ঘটনাস্থলে পাঠায়। পরবর্তীতে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যামল বনিকের নির্দেশে প্রায় ১০ফুট লম্বা ও ১ফুট চওড়া অজগর সাপটি এ.এস.আই হরিধন ও সাংবাদিক শোয়েব উদ্দিনের উপস্থিতিতে খাদিম নগর উদ্যানের হিসাব রক্ষক আব্দুল কাদিরের নিকট হস্তান্তর করেন।

তিনি সাপটি খাদিম নগর উদ্যানে অবমুক্ত করা হবে বলে জানান। তবে সারী বিট ও রেঞ্জের কাউকে সাপ উদ্ধারে জন্য ঘটনাস্থলে দেখতে পাওয়া যায়নি।

সারী রেঞ্জেরে কর্মকর্তা সাদ উদ্দিন প্রতিবেদকে জানান- বিট কর্মকর্তা কোন অবস্থায় সাপ উদ্ধার করা হতে বিরত থাকতে পারেন না। কি কারনে সাপ উদ্ধার না করে মেরে ফেলার বা লোকালয়ে ছেড়ে দেওয়ার পারমর্শ দিলেন তা বোধগম্য হচ্ছে না। আমি বিষয়টি খোঁজ খবর নিয়ে দেখছি।

নাজমুল ইসলাম/জৈন্তাপুর