আসামী ধরাকে কেন্দ্র করে জেলেদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষে ।ছবি সংগৃহীত

সীতাকুণ্ডের কুমিরা জেলে পাড়ায় আসামী ধরাকে কেন্দ্র করে জেলেদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষে এক মহিলা মারা গেছে ও পুলিশের এলো পাতাড়ি গুলিতে বেশ কয়েকজন নারী পুরুষ আহত হয়েছে ।

২০ মে সোমবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে কুমিরা ঘাটঘরের পশ্চিমে জেলে পাড়ায় এ সংঘর্ষ হয়েছে। এতে পুলিশসহ ৭ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তাছাড়া পুলিশের বেধড়ক পিটুনিতে বেলাম্বু দাসী (৫৮) নামে নিহত হয়েছে বলে স্থানীয়রা দাবী করলেও এ সীতাকুণ্ড থানার পুলিশ বলছে বেলাম্বু দাসী হার্টএ্যাটাকে মারা গেছে।
এলাকাবাসীরা জানায়, রাত সাড়ে ১১ টার দিকে জেলে পাড়ার নিজ ঘর হতে বিনা কারণে এসআই জসিম ঘুমন্ত যুবক রুবেল দাশকে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় গ্রেফতারের কারণ জিজ্ঞাসাবাদ করতে গেলে বাড়ীর লোজনের সাথে বিরোধ শুরু হয়। এসময় পুলিশ বাড়ীর নারী পুরুষদের প্রথমে লাঠিপেটা করে।
পুলিশের পিটুনীতে বেলাম্বু দাসী (৫৮) নামের এক বৃদ্ধ নারীর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকার শত শত লোকজন জড়ো হলে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ বাধে। পরে অতিরিক্ত দাঙ্গা পুলিশ গিয়ে এলোপাতাড়ি গুলি চালায় বলে অভিযোগ করেন এলাকার লোকজন। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়।
এদিকে ঘটনায় ওসিসহ বেশ কয়েকজন পুলিশ গুরুতর আহত হয়েছে বলে দাবি পুলিশের।
ঘটনার বিষয়ে জানতে সীতাকুণ্ড থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন ও সার্কেল এএসপি শম্পা রানীর সরকারী মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দেয়া হলেও তারা ফোন রিসিভ করেন নি।
স্থানীয় কুমিরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোর্শেদ চৌধুরী জানান তিনি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছেন। তিনি এক নারীর মৃত্যুর ঘটনা স্বীকার করেছেন তবে নিহত নারী কিভাবে মারা গেছে তা তিনি জানাতে পারেনি।
সীতাকুণ্ড থানার ওসি (তদন্ত) সংঘর্ষের ঘটনা স্বীকার করে বলেন, রুবেল একজন ইয়াবা ব্যবসায়ীকে আটক করতে গেলে জেলেরা পুলিশের উপর হামলা চালায়।
এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আজকের পত্রিকা/ মেজবাহ খালেদ/সীতাকুন্ড/চট্টগ্রাম/রাফাত