ফুরফুরে একটি দিন শুরু করতে চা পান করুন। ছবি: সংগৃহীত

চা পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয় পানীয়। ফুরফুরে একটি দিন শুরু করতে চাইলে সকালটা যেন চা দিয়েই শুরু করতে হয়। পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মানুষের মতো আমাদের দেশেও বেশির ভাগ মানুষের কাছে চা খুব জনপ্রিয় ও উপভোগ্য পানীয়। যদিও চা পানের ইতিহাসটা আমাদের বেশি দিনের নয়। বড়জোর দেড়শো বছর হবে। ১৮৫৭ সালের দিকে সিলেটের মালনীছড়ায় শুরু হয় চায়ের বাণিজ্যিক চাষাবাদ। চায়ের কাপে চুমুক দিয়ে দিনের শুরুটা কোনো ভাবেই মন্দ নয়। মানুষের জীবনে কাজের ব্যস্ততা ও দুশ্চিন্তার শেষ নেই। এসবের মাঝেই সামান্য সময়ের অবসরে এক কাপ চা মনে এনে দেয় অপার্থিব প্রশান্তি। তৎক্ষণাৎ কর্মক্ষম করে তোলে। বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডায়, অতিথি আপ্যায়নে, মিটিং, অনুষ্ঠান, সভা, সেমিনার, বুদ্ধিবৃত্তিক আলোচনায়, বিকেলের নরম রোদে চা পানের বিকল্প নেই।

ছুটির দিন বিকেল বেলা। ঘরের জানালা খোলা। ব্যালকোনিতে ভ্রমণ করছে উত্তরের হাওয়া। প্রিয়জন আছে কিংবা নেই। থাকলেও দেখা নেই কোনো মান অভিমানে। একলা না থেকে এক কাপ চা নিয়ে বসে পড়েন জানালার পাশে। আপনার অবসরে, একাকীত্বে মনের অজান্তেই কখন যে সঙ্গী হয়ে যাবে এই চা ধরতেই পারবেন না। তবে মনকে সতেজ করতে, চিন্তাকে বলবান, গভীর ও চটপটে করতে চা থেকে যেমন পাচ্ছি অ্যান্টি অক্সিডেন্ট তেমন শরীরের অন্যান্য ক্রিয়াকলাপেও চায়ের উপকারিতার কমতি নেই। বিভিন্ন প্রকার চা যেমন- গ্রিন টি, ব্ল্যাক টি ওলোং ইত্যাদি আমাদের শরীরের বিভিন্ন রোগ নিরাময়ে সাহায্য করে।

খুসখুসে কাশি ও মাথাব্যথা সারাতে

যারা নিয়মিত চা পান করেন তারা হঠাৎ চা পান না করলে দৈনন্দিন মানসিক স্ফূর্তি হারানোর পাশাপাশি মাথা ব্যথাও শুরু হয়। বহুদিন ধরে আদা চা, তুলসী চা আমাদের মাথা ব্যথা, নাক বন্ধ, গলা ব্যথা সারাতে ব্যবহার হয়ে আসছে।

ক্যানসার প্রতিরোধে

চায়ের নানারকম উপকারিতা থাকলেও ক্যানসার প্রতিরোধেও এর ভূমিকা রয়েছে তা একটু বানিয়ে বলার মতোই শোনায়। যতই হোক, চা তো কোনো ঐশ্বরিক পানীয় নয় যে পান করলেই সব রোগ সেরে যাবে। তবে অনেক গবেষণা করে বিজ্ঞানীরা দেখেছেন, চায়ের গুণাগুণ স্তন, কোলন, ত্বক, ফুসফুস, পাকস্থলী ও জরায়ুর ক্যানসার প্রতিরোধে সাহায্য করে। এছাড়াও অপঘাতজনিত রোগের শঙ্কা কমে আসে গ্রিনটি পানের দ্বারা। যত বেশি গ্রিনটি পান হবে ততই এসব রোগের ঝুঁকি কমে আসবে। রক্তচাপ ও স্ট্রোক হ্রাস।

ওজন কমাতে

দুধ, চিনি ছাড়া গ্রিন টি বা ব্ল্যাক টিতে আছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও ম্যাগনেশিয়াম যা আমাদের শরীরের চর্বিকে কমিয়ে ওজন কমাতে সাহায্য করে।