ঘরে ফুল রাখলে মানসিক চাপ কমে। ছবি: সংগৃহীত

পৃথিবীর সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য ফুল হলো স্রষ্টার উপহার। কবি বলেছেন, ‘শুধুমাত্র বেঁচে থাকাই যথেষ্ট নয়, যদি না সূর্যের আলো, স্বাধীনতা এবং হাতের কাছে একটা ছোট ফুল থাকে।’ তাই প্রত্যেকেরই উচিত নিজের বাড়ি ফুল দিয়ে সাজানো।

ঘরে ফুল রাখার অনেক রকম ইতিবাচক মানসিক প্রভাব লক্ষ্য করা যায়। জেনে নিন সেইসব ইতিবাচক প্রভাব সম্পর্কে

মানসিক চাপ কমে

বিভিন্ন রকম মানসিক চাপ মানবজীবনের নিত্য দিনের সঙ্গী হয়ে গেছে। মানসিক চাপ নেই এমন মানুষ বোধহয় বর্তমানে বিরল। সারাদিনই তো অফিসে খাটা-খাটনিক করেন প্রত্যেকেই। তারপর বাড়ির কিছু কাজ করতে হয়। নারীদের দ্বিগুণ চাপ সামলাতে হয় আজকের যুগে। বাড়ি এবং অফিস একই সঙ্গে সামলাতে হয়। বাড়ি ফিরে এই স্ট্রেস নিয়ে তো আর ঘুমাতে যাওয়া যায় না। বাড়ি যদি সুন্দর করে ফুল দিয়ে সাজিয়ে রাখেন, তাহলে শত খাটনির পর বাড়ি ফিরে চাপ মুক্তি পাবেন। একটু স্বস্তির নিশ্বাসও নিতে পারবেন।

মুড ভালো হয়

ফুল মানুষের মন ও মেজাজ ভালো করে তোলে। সকাল সকাল যদি কুরিয়ারে একটা দারুণ ব্যুকে আসে, তাহলে মনটা কিন্তু ভালো হয়ে যায়। আবার শরতের সকালে উঠোনে শিউলি ছড়িয়ে আছে, সেটা দেখলেও মেজাজ চাঙ্গা হয়ে যেতে বাধ্য। অর্থাৎ এটা প্রমাণিত যে, ফুল আপনার মুড ভালো করে তোলে।

রোমান্টিক হওয়ার জন্যে

ফুল মানেই রোমান্টিক মনোভাব। সুগন্ধিময় ফুল প্রেমকে আরও ঘনীভূত করে। ঘর ফুল দিয়ে সাজালে সঙ্গীর বেশ ভালো লাগবে। দুজনের মনেই একটা রোমান্টিকতা বিরাজ করে। ফুল দুজনের মধ্যেই অন্তরঙ্গতা বাড়িয়ে তোলে। ফলে সম্পর্ক সঠিক ট্র্যাকে চলাচল করে। ঠিক সে কারণের বাসর ঘর ফুল দিয়ে সাজানোর প্রথা আমাদের দেশে যু যুগ ধরে চলে আসছে।

চোখে ঘুম আনে

চোখে ঘুম আনতে সাহায্য করে কিছু ফুল। যাদের ঘুমের ক্ষেত্রে সমস্যা হয়, তারা নিজেদের শোয়ার ঘরে এই ফুল রাখতে পারেন। ল্যাভেন্ডার ফুল কিন্তু চোখে ঘুম নামানোর ক্ষেত্রে কার্যকরী।

আজকের পত্রিকা/কেএইচআর/সিফাত