হস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হার দিয়ে বিশ্বকাপ থেকে এক প্রকার বাদই হয়ে গিয়েছিলো বাংলাদেশ। তবে বিশ্বকাপকে নতুন পথ দেখিয়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কা এবং পাকিস্তান।ছবি:সংগৃহীত

বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হার দিয়ে বিশ্বকাপ থেকে এক প্রকার বাদই হয়ে গিয়েছিলো বাংলাদেশ। তবে বিশ্বকাপকে নতুন পথ দেখিয়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কা এবং পাকিস্তান।

শুক্রবার হট ফেভারিট ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ম্যাড়ম্যাড়ে বিশ্বকাপ জমিয়ে দিয়েছে লঙ্কানরা। পাকিস্তানও জিতে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকার সাথে।আর সব মিলিয়েই সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে বাংলাদেশের সেমিফাইনাল খেলার। তবে এজন্যে পূরণ করতে হবে কিছু শর্ত। এক নজরে দেখে নিন টাইগারদের সেমিফাইনালে ওঠার সমীকরণ।

সহজভাবে বললে পরবর্তী ৩ ম্যাচে বাংলাদেশকে জিততে হবে অন্যদিকে ৩ ম্যাচে হারতে হবে ইংল্যান্ডকে। তাদের প্রতিপক্ষ যথাক্রমে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এবং ভারত। বর্তমান অবস্থায় সেমি অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে রয়েছে ভারত এবং অস্ট্রেলিয়ার। অন্যদিকে টুর্নামেন্ট থেকে আফগানিস্তান,ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিদায়ও প্রায় নিশ্চিত।

সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের সেমিফাইনাল খেলার পথে বড় বাঁধা ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, শ্রীলংকা এবং পাকিস্তান। বাংলাদেশের সমান ৬ ম্যাচ খেলে ইংল্যান্ডের পয়েন্ট ৮ হলেও, পরের তিন ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ পয়েন্ট টেবিলের উপরের তিন দল অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এবং ভারত। আগামী তিন ম্যাচেই যদি তারা হেরে যায় তাহলে তাদের পয়েন্ট থেকে যাবে ৮’ই। অন্যদিকে দুই ম্যাচ জিতলে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে ৯।

আরেক প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড অবশ্য সুবিধাজনক অবস্থানেই রয়েছে। ৫ ম্যাচের ৪ টিতে জিতে তাদের পয়েন্ট ৯। বাকি চার ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড, পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়া। যেখানে ২ ম্যাচেও যদি তারা জয় পায়, তাহলে তাদের সেমিতে খেলা নিশ্চিত হয়ে যাবে। আর যদি সবগুলো ম্যাচে হেরে যায় তাহলে বাংলাদেশের সামনে সুযোগ থাকবে তাদের টপকে যাওয়ার।

টাইগারদের সেমিস্বপ্নের আরেক বাধা শ্রীলংকা। সেমিতে খেলতে হলে বাকি তিন ম্যাচের কমপক্ষে দুটিতে জিততে হবে তাদের। লঙ্কানরা যদি দুই ম্যাচ জিতে যায়, তাহলে তাদের পয়েন্ট হবে ১০। সে ক্ষেত্রে লঙ্কানদের ছোঁয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই বাংলাদেশের। শ্রীলঙ্কা এক ম্যাচ জিতলে এবং বাকি দুই ম্যাচ হারলেই কেবল তাদেরকে পেছনে ফেলার সুযোগ থাকবে বাংলাদেশের সামনে। তবে সব হিসেব-নিকেশ মিলে যাবে তখনই, যখন পাকিস্তান, আফগানিস্তান কিংবা ভারতের বিরুদ্ধে অন্তত দুই ম্যাচ জিততে পারবে বাংলাদেশ।

আজকের পত্রিকা/এসএমএস