আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সংসদ সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের নাতি জায়ান চৌধুরী (৮)। ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমে নাতি জায়ান চৌধুরীকে দেখতে বনানীর বাড়িতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি দুপুর ২টা ৪০ মিনিটে সেখানে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফুফাত ভাই শেখ সেলিম। তাই পারিবারিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বাবা-মায়ের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা হয়ে যেত জায়ানকে। জায়ানে মৃত্যু দাগ কেটেছে প্রধানমন্ত্রীকে।

নানা শেখ ফজলুল করিম সেলিমের বনানীর বাড়িতে আনা হয়েছে শ্রীলঙ্কায় বোমা বিস্ফোরণে নিহত শিশু জায়ান চৌধুরীর মরদেহ। ২৪ এপ্রিল বুধবার হযরত শাহজালাল (রা.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে  দুপুর দেড়টার দিকে তাকে শেখ সেলিমের বাসায় আনা হয়। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টমণ্ডলীর সদস্য তোফায়েল আহমেদ এবং ক্ষমতাসীন দলের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ।

জায়ান মরদেহ বাসায় আনার পর সেখানে মন্ত্রী, এমপি, বিভিন্ন রাজনীতিক এবং আত্মীয়-স্বজনরা ভিড় করেন। এ সময় সেখানে আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। জায়ানের মরদেহ দেখে আবেগ সামলাতে পারেননি আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ।

সেলিমের বাসায় অবস্থান করছেন স্পিকার শিরীন সারমিন চৌধুরী, আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে এম অবদুল মোমেন, সংসদ সদস্য পঙ্কজ দেবনাথ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজ্জামেল হক, বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ, উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়ার আতিকুল ইসলাম প্রমুখ।

বাদ আসর বনানীর চেয়ারম্যানবাড়ি মাঠে তার নামাজে জানাজা হবে। দাফন করা হবে বনানী কবরস্থানে। জানাজা উপলক্ষে বনানীর চেয়ারম্যানবাড়ি মাঠে বিশাল সামিয়ানা টানানো হয়েছে। জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থাও। মাঠের আশপাশে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২১ এপ্রিল রবিবার শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ বোমা হামলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফুফাতো ভাই শেখ সেলিমের মেয়ে জামাই মশিউল হক চৌধুরী গুরুতর আহত হন। নিহত হয় তার নাতি জায়ান চৌধুরী। উত্তরায় সানবিম স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র ছিল জায়ান।

শ্রীলঙ্কার ওইদিনের সিরিজ বোমা হামলায় এখন পর্যন্ত ৩২১ জন নিহত হয়েছেন। এর দায় স্বীকার করেছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)।

আজকের পত্রিকা/আ.স্ব/