এম. এ. আর. শায়েল
সিনিয়র সাব এডিটর

মোহাম্মাদ মানিক হোসেন

দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে সাংবাদিককে ক্ষমতাসীন দলের নেতা ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি সুমন চন্দ্র দাস মারধরের হুমকি দিয়েছেন।

এ ঘটনায় নিরাপত্তা চেয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে চিরিরবন্দর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন জাতীয় দৈনিক খোলা কাগজ ও ৭১ টেলিভিশনের সংবাদদাতা মোহাম্মদ মানিক হোসেন ।

মানিক হোসেন চিরিরবন্দর অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি ও বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) এর চিরিরবন্দর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক।

এ সময় চিরিরবন্দর অনলাইন প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক মাহফুজুল ইসলাম আসাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মন্জুর আলী শাহ্ , প্রচার সম্পাদক সোহাগ গাজীসহ সবাই উপস্থিত ছিলেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বিগত কয়েকদিন ধরে ক্ষমতাসীন দলের নেতার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম দূর্নীতি ও মাদক কারবারীর খবর বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশ করায় বুধবার (৩ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে ৩ টায় চিরিরবন্দর উপজেলা পরিষদ চত্বরে ইউএনও অফিসের সামনে যুবলীগ সভাপতি সুমন দাস তার সহযোগী বাহিনী নিয়ে সাংবাদিক মানিককে ডেকে নেয়। তাকেসহ তার সাথে থাকা উপজেলার সকল সাংবাদিককে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে সাংবাদিকদের মারধরের হুমকি দেয় ও সবাইকে চিরিরবন্দর ছাড়ার হুমকি প্রদান করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিক মানিক হোসেন জানান, এ ব্যাপারে চিরিরবন্দর থানায় প্রেসক্লাবের সকল সাংবাদিককে নিয়ে জিডি করেছি।

তিনি আরও জানান, যুবলীগ সভাপতি সবার সামনে সাংবাদিকদের সাথে খারাপ আচরণ করেছেন এবং মারধরের হুমকি দিয়েছেন। আমাকে এবং আমার সাথে থাকা অন্যান্য সাংবাদিকদের রাস্তাঘাটে, হাটে-বাজারে যেকোনো জায়গায় একা পেলে ক্যামেরা ও হাত-পা ভেঙে দেয়ার ভয় দেখান।

সাংবাদিককে গালিগালাজ করার সময় ঘটনাস্থলেই উপস্থিত ছিলেন চিরিরবন্দর উপজেলার আব্দুলপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলিম সরকার।

তিনি বলেন, সাংবাদিক মানিক হোসেনকে সুমন চন্দ্র দাস আমার চোখের সামনেই মারধরের হুমকি দেয়। সুমন দাস উপজেলার ছোট-বড় কাউকেই মানে না।

এ বিষয়ে চিরিরবন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আহসানুল হক মুকুল ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি সুমন দাসের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি।

এ ব্যাপারে দিনাজপুর জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ পারভেজ মুঠোফোনে জানান, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। ঘটনাটির বিস্তারিত খোঁজ-খবর নিয়ে আমরা পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহনণ করবো।

চিরিরবন্দর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুব্রত কুমার রায় জিডির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সাংবাদিকে হুমকি এটা আশা করা যায় না ‘এ ব্যাপারে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’