বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ছবি : সংগৃহীত

চিকিৎসার জন্য ব্যাংককে গেলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তার সঙ্গে আছেন স্ত্রী রাহাত আরা বেগম। ১৫ মে বুধবার বেলা ১১টা ২০ মিনিটে হযরত শাহ্‌জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বাংলাদেশ বিমানের-০৮৮ ফ্লাইটে ব্যাংককের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন মির্জা ফখরুলের ব্যক্তিগত সহকারী ইউনুস আলী।

বিমানবন্দরে তাকে বিদায় জানান বিএনপির সহ-শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ আহমদ। বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, আগামী ২৩ মে মির্জা ফখরুলের দেশে ফেরার কথা রয়েছে। এছাড়া মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মির্জা ফখরুল বলেছিলেন, ‘আমি খুবই অসুস্থ। চিকিৎসার জন্য বুধবার ব্যাংকক যাচ্ছি। তিনি দেশবাসীর কাছে তার সুস্থতার জন্য দোয়া চেয়েছেন।’

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে চিকিৎসা নেবেন বিএনপি মহাসচিব। হৃদরোগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের অ্যাপয়েন্টমেন্ট করা হয়েছে। এর আগেও সেখানে চিকিৎসা নিয়েছিলেন তিনি। এছাড়া বিএনপির একটি সূত্র জানায়, ‘ব্যাংককে চিকিৎসা শেষে লন্ডন যেতে পারেন মির্জা ফখরুল। সেখানে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে তার বৈঠক করার কথা রয়েছে।’

বিএনপি মহাসচিবের হৃদরোগ ছাড়াও ঘাড়ে ইন্টারনাল ক্যারোটিভ আর্টারিতে জটিলতা রয়েছে। এর চিকিৎসার কোনো ব্যবস্থা বাংলাদেশে না থাকায় ২০১৫ সালে ১৪ জুলাই কারাবন্দি ফখরুলকে বিদেশে যেতে জামিন দেন সুপ্রিম কোর্ট। এরপর কয়েক দফায় তিনি সিঙ্গাপুর, ব্যাংকক ও যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য যান।

হৃদরোগের চিকিৎসার জন্য সর্বশেষ ২০১৪ সালের ৩ জুন ব্যাংকক গিয়েছিলেন মির্জা ফখরুল। তার আগে ২০১৬ সালের ২৮ এপ্রিল তিনি ব্যাংকক যান।

আজকের পত্রিকা/রাজনীতি/আ.স্ব