চা মন্ত্রণালয়ের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন।

চা শিল্পকে বাঁচাতে বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলন করেন হামিদিয়া টি কোম্পানীর ভাইস চেয়ারম্যান ওলিউর রহমান।

এসময় তার পক্ষে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দেন কোম্পানীর জিএম সিরাজুল ইসলাম। বুধবার রাতে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেসক্লাবে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে চা শিল্পে পৃথক মন্ত্রনালয় প্রতিষ্ঠা ও সিন্ডিকেটদারী টি টেস্টারদের বাদ দিয়ে ডিজিটাল পদ্ধতিতে চায়ের মান নির্ণয় এর ব্যবস্থা করার দাবীতে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন হামিদিয়া টি কোম্পানীর জিএম সিরাজুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বাংলাদেশ ডিজিটাল হয়ে যাচ্ছে অথচ এখনো বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি ছাড়াই মান্দাতার আমলের ধারামতে গুটি কতেক লোক মুখের ভিতর লিকার চা ঢুকিয়ে কুলকুচি করেই টি টেস্টাররা বলে দেন এটা ভালো আর ওটা খারাপ। তাদের মুখের কথায় সব হয়ে যায়।

বৈজ্ঞানিক যন্ত্র ও চায়ের ভালোমন্দের গুন মাপার মানদন্ড প্রচলিত না হওয়ায় অনেক সমস্যার সম্মুখিন হতে হয়েছে বাগান মালিকদের। তাদের দাবি যন্ত্র যতদিন প্রচলণ হয় ততদিন সরকারিভাবে লোক নিয়োগ দিয়ে চায়ের গুনগত মান নির্ধারণ করা উচিৎ।

বুধবার রাতে সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, টি টেস্টারের সিন্ডিকেটের কারনে অনেক বাগান চায়ের উৎপাদন খরচই পাচ্ছেন না। এতে তাদের দেউলিয়া হয়ে যাওয়া ছাড়া আর কোন উপায় নেই।

এ অবস্থা থেকে উত্তরনের জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আর্কশন করে বলেন, চা মন্ত্রনালয় স্থাপন করে এই সকল সিন্ডিকেটসহ সকল প্রতিবন্ধকতা দূর করতে পারলে বাংলাদেশর চা আবার রপ্তানী হবে। এ থেকে প্রচুর পরিমানে বৈদেশিক মুদ্রাও অর্জন হবে। চলমান বছরেও চায়ের উৎপাদন ১০০ মিলিয়ন কেজি ছাড়িয়ে যাবে বলে জানান তিনি।

মো:সাজন আহমেদ রানা/শ্রীমঙ্গল