প্রধানমন্ত্রীর মানবিক কর্মস‚চি এবং খাদ্যবান্ধব কর্মস‚চিতে চাল বিতরণের তালিকায় অনিয়ম এবং আত্মসাতের অভিযোগে হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার ১১নং গজনাইনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইমদাদুর রহমান মুকুলকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে মঙ্গলবার (৭ জুলাই) এ সংক্রান্ত পৃথক প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির হতদরিদ্রদের তালিকা প্রণয়নে ব্যাপক অনিয়ম, নিয়ম বর্হিভ‚তভাবে ডিলারকে দিয়ে তালিকা প্রস্তুত করা, মৃত ব্যক্তিকে ও একই ব্যক্তির নাম একাধিকবার অন্তর্ভুক্ত এবং বরাদ্দকৃত চাল সঠিক ব্যক্তির মাঝে বিতরণ না করার অভিযোগে হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার ১১ নং গজনাইনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইমদাদুর রহমান মুকুলকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

সাময়িকভাবে বরখাস্তকৃত চেয়ারম্যান ইমদাদুর রহমান মুকুলকে পৃথক কারণ দর্শানো নোটিশে কেন চ‚ড়ান্তভাবে তাকে পদ থেকে অপসারণ করা হবে না, তার জবাবপত্র এই চিঠি প্রাপ্তির ১০ কার্যদিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্থানীয় সরকার বিভাগে প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, নবীগঞ্জের গজনাইনপুর ইউনিয়নে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির তালিকায় ব্যাপক অনিয়ম নিয়ে দেশের প্রায় সকল শীর্ষ গণমাধ্যমে ফলাও করে সংবাদ প্রচার করা হয়।

পরে নবীগঞ্জ উপজেলা খাদ্য বান্ধব কমিটির মাসিক সভার সিদ্ধান্তক্রমে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। দীর্ঘ তদন্ত শেষে অবশেষ তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয় সংশ্লিষ্ট দপ্তরে।

এদিকে, ইউপি চেয়ারম্যান মুকুল বরখাস্তের খবরে ভুক্তভোগীদের মধ্যে আনন্দ বিরাজ করছে। রিতিমত ওই এলাকায় অনেকটা স্বস্থি ফিরে এসেছে।

আলোচিত এই ইউপি চেয়ারম্যান নবীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি।

  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    5
    Shares