বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৫ অক্টোবর। এরই মধ্যে নির্বাচন স্থগিত করতে নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চন বরাবর আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন শিল্পী সমিতির সাবেক দুই সদস্য মো. সোহেল খান ও মো. হোসেন লিটন। এই দুই শিল্পীর পক্ষে নোটিশটি পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী গোলাম মোহাম্মদ সাইফুর রহমান। কেন নির্বাচন স্থগিত করতে হবে তার ৯টি কারণ উল্লেখ করা হয়েছে এই উকিল নোটিশে।

যেই কারণগুলোর মধ্যে আছে, নিয়ম বহির্ভূতভাবে ভোটার তালিকা থেকে সদস্যদের বাদ দেওয়া, গঠনতন্ত্রের নিয়ম না মেনেই কোনো কোনো শিল্পীদের ভোটার বানানো।

মো. সোহেল খান ও মো. হোসেন লিটনের অভিযোগ পূর্ণ সদস্য হওয়ার পরও তাদের নতুন ভোটার তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়া হয়েছে। বিশেষ কারণে গঠনতন্ত্রের বাইরে গিয়ে কমিটি ভোটার তালিকায় তাদের নাম বাদ দেওয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে নোটিশে।

উকিল নোটিশে আরও উল্লেখ করা হয়, এইচ আর অন্তর, আরিযান শাহ ও শ্রাবণ নামের একজন অভিনেত্রী দু’টি সিনেমা করলেও তাদের পূর্ণ সদস্যপদ দেওয়া হয়েছে। অথচ ১০টিরও বেশি সিনেমায় অভিনয় করার পরও সোহেল খান ও হোসেন লিটনের সদস্যপদ বাতিল করা হয়।

নোটিশে ইলিয়াস কাঞ্চনকে নোটিশ পাওয়ার তিন দিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত নিতে বলা হয়েছে। তা না করলে উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হবেন বলে জানিয়েছেন গোলাম মোহাম্মদ সাইফুর রহমান।

এদিকে, এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চন জানান, এখনো তার হাতে কোনো উকিল নোটিশ পৌঁছায়নি। তিনি বলেন, ‘কোনো উকিল নোটিশ আমার হাতে আসেনি। নোটিশ পেলে তারপর পরববর্তী সিদ্ধান্ত নেব।’