চট্টগ্রামে ছাত্রলীগ-পুলিশ রণক্ষেত্র।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের ডাকা অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট দ্বিতীয় দিনের মতো চলছে। এ কারণে ৮ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস ও পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে।

৮ এপ্রিল সোমবার সকালে চট্টগ্রাম থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশে কোনো শাটল ট্রেন ছেড়ে যায়নি। আসেনি কোনো যানবাহনও। ক্যাম্পাসে বন্ধ রয়েছে সকল দোকানপাট।

এদিন সকালে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মশিউদ্দৌলা রেজা সাংবাদিকদের বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। কেউ পরিবেশ অশান্ত করার চেষ্টা করলে তা দমন করা হবে।

এদিকে গত ৩১ মার্চ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের ২ পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় পাঁচটি হলে তল্লাশি চালিয়ে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করে পুলিশ। পরদিন আবারও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটলে ছাত্রলীগের একটি অংশের ৬ কর্মীকে আটক করে পুলিশ। পরে তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় ছাত্রলীগ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরীর পদত্যাগ, হাটহাজারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীরকে প্রত্যাহার, গ্রেপ্তার কর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তিসহ চার দফা দাবিতে রোববার থেকে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু করে।

৭ এপ্রিল রবিবার পুলিশের সাথে ছাত্রলীগের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় পুরো বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

আজকের পত্রিকা/এমএআরএস