গ্রামীণফোনের লোগো। ছবি: সংগৃহীত

গুণগত মান বজায় রাখতে না পারায় নতুন সেবার (প্যাকেজ, অফার, কলরেট) তথ্য জানিয়ে কোনো মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিতে পারবে না মোবাইল ফোন অপারেটর কোম্পানি গ্রামীণফোন। ১৮ ফেব্রুয়ারি গ্রাহক সংখ্যায় শীর্ষে থাকা গ্রামীণফোন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার (সিইও) কাছে এ সংক্রান্ত এক চিঠি পাঠিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

বিটিআরসি সেই চিঠিতে জানানো হয়েছে, অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে স্বতন্ত্র এবং একক স্বত্ত্বাধিকার চুক্তিও করা যাবে না। কোনোভাবেই মাসে কল ড্রপের সর্বোচ্চ হার ২ শতাংশের বেশি হতে পারবে না। এমএনপি লকের ক্ষেত্রে মেয়াদ হবে ৩০ দিন। দেশব্যাপী কোনো ধরনের মার্কেট কমিউনিকেশন করা যাবে না।

জানা গেছে, এই সময়ে নতুন প্যাকেজ বা অন্য কোনো সেবার ক্ষেত্রে গ্রামীণফোন আর কোনো বিজ্ঞাপন দিতে না পারলেও পুরাতন বিজ্ঞাপনগুলো চলতে পারবে।

এছাড়া গ্রামীণফোনকে এসএমপি অপারেটর হিসেবে ঘোষণার পর তার লাগাম টানতে চারটি শর্ত দেয়া হয়েছে। এসব শর্তের মধ্যে রয়েছে, এমএনপিতে আসা গ্রাহক আটকে রাখার সীমা কমানো, কর্পোরেট সেবার ক্ষেত্রে এক্সক্লুসিভিটি বা একক অধিকার না রাখতে দেয়া, কলড্রপের হার কমিয়ে দেয়া, গ্রাহক, ডিলার বা বিপণন পর্যায়ে বিশেষ অফার বন্ধ রাখা।

উল্লেখ্য, ১০ ফেব্রুয়ারি এসএমপি ঘোষণা পর গ্রামীণফোনকে করণীয় ও বর্জনীয় নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে এই চিঠিতে।

আজকের পত্রিকা/এমআরএস

আরও পড়ুন

* ফোরজি গতি দিচ্ছে না দেশের কোন অপারেটর, থ্রিজিও দিচ্ছে না টেলিটক
* সবচেয়ে বেশি কলড্রপ গ্রামীণফোনে