বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান আক্কাস আলীর বিরুদ্ধে দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগ তদন্ত চলাকালে ফেসবুকে ষ্ট্যাটাস দেয়ার দায়ের ৫ শিক্ষার্থীকে কারন দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

৯ মে বৃহস্পতিবার দুপুরে গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার প্রফেসর ড. মো: নূরউদ্দিন আহমেদ স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ তথ্য জানা গেছে।

কারন দর্শানোর নোটিশ পাওয়া ৫ শিক্ষার্থীরা হলেন, সিএসই বিভাগের মেহেদী হাসান, বিষ্ণু চন্দ্র সরকার, মো: মেজবাউল হাসান, মো: রাশেদুজ্জামান সিকদার ও সুকান্ত কুমার ঘোষ।

কারন দর্শানোর চিঠিতে বলা হয়েছে, গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান আক্কাস আলীকে নিয়ে পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের প্রেক্ষিতে গঠিত তদন্ত কমিটির তদন্ত চলাকালে ফেসবুকে অশালীন ষ্ট্যাটাস প্রদানের বিষয়ে আপনার সাথে তদন্ত কমিটির আলোচনা, ভিডিও ক্লিপ ও অন্যান্য তথ্য থেকে আপনার সংশ্লিষ্টতা প্রমানিত হয়েছে।

এমন কর্মকান্ডের জন্য আপনার বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে না তা পত্র জারির তারিখ থেকে ৫ কার্য্য দিবসের মধ্যে লিখিতভাবে জবাব প্রদানের জন্য বলা হলো।

অভিযুক্ত শিক্ষার্থী মো: রাশেদুজ্জামান সিকদার বলেন, আমরা আন্দোলন চলাকালে ফেসবুকে ষ্ট্যাটাস দিয়েছি এটা ঠিক। আন্দোলন বেগবান করতে এবং পত্র পত্রিকায় ও টেলিভিশনের যে সব সংবাদ প্রকাশ ও প্রচার হয়েছে তা আমরা ফেসবুকে দিয়েছি। কিন্তু কোন ধরনের অশালীন ষ্ট্যাটাস দেইনি। এখন আমরা ৫ জন এক সাথে বসে আলাপ আলোচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহন করব। তবে অন্য চার শিক্ষার্থীর মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়ায় তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার প্রফেসর ড. মো: নূরউদ্দিন আহমেদ জানান, আন্দোলন চলাকালে শিক্ষকদের বিরুদ্ধে ফেসবুকে ষ্ট্যাটাস দেয় ওই ৫ শিক্ষার্থী। এ বিষয়ে ওই ৫ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে কারন দর্শানোর জন্য আমাকে পত্র দেয় বিশ্ববিদ্যালয় শৃংখলা বোর্ড। সেই আলোকে আমি একটি কারন দর্শানোর নোটিশ দিয়েছি।

এব্যাপারে গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন সাংবা‌দিক‌দের‌কে বলেন, ফেসবুকে বিভিন্ন ধরনের ষ্ট্যাটাস দেবার জন্য ওই ৫ শিক্ষার্থীকে কারন দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে দুই শিক্ষার্থীকে যৌন নিপীড়নের ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে গত ৭ এপ্রিল থেকে (রবিবার) শিক্ষার্থীরা ক্লাশ ও পরীক্ষা বর্জন করে ওই শিক্ষকের স্থায়ী অপসারনের দাবীতে আন্দোলনে নামে। এর প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড. মোঃ আব্দুর রহিম খানকে সভাপতি ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষক ড. মোঃ বশির উদ্দিনকে সদস্য সচিব করে ৪ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছিল।

ওই তদন্ত কমিটি গত ১৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃংখলা বোর্ডের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এ প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর বিশ্ববিদ্যালয় শৃংখলা বোর্ড অভিযুক্ত শিক্ষক সহকারী অধ্যপক ইঞ্জিঃ মোঃ আক্কাস আলীকে আজীবনের জন্য বিভাগীয় প্রধানের পদ থেকে অব্যাহতি প্রদান করাসহ জানায়ারী-জুন ২০১৯ হতে জুলাই-ডিসেম্বর ২০২২ পয্যন্ত ৮ সেমিষ্টারের জন্য একাডেমিক ও প্রশাসনিক কায্যক্রম থেকে বিরত রাখার সিদ্ধান্ত নেয়।

 মোজা‌ম্মেল হো‌সেন মুন্না, গোপালগঞ্জ