প্রতীকী ছবি

গোপালগঞ্জে মনির হোসেন হত্যা মামলায় দ্বিতীয় স্ত্রী ঝুমুর বেগম(৩২) ও তার দুলাভাই শহিদুল ইসলাম সাগরকে(৩২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

২৪ ফেব্রুয়ারি রোববার সকালে আদালতে ১৬৪ ধারায় হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করেছে গ্রেফতারকারীরা। দুপুরে সহকারী পুলিশ সুপারের কার্য্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, গোপন সংবাদ ও প্রযুক্তির সহায়তায় ২৩ ফেব্রুয়ারি শনিবার রাতে খুলনার ও পিরোজপুর থেকে হত্যা মামলার আসামি নিহতের দ্বিতীয় স্ত্রী ঝুমুর বেগম ও তার দুলাভাই শহিদুল ইসলাম সাগরকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

পরে ২৪ ফেব্রুয়ারি রবিবার সকালে গোপালগঞ্জ আদালতে তাদেরকে হাজির করলে তারা ১৬৪ ধারায় হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করে।

তিনি আরো জানান, নিহত মনির বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত থাকায় ঝুমুর প্রতিবাদ করলে তাকে মারধর করতো। এছাড়া ঝুমুরের প্রথম পক্ষের ১৩ বছর বয়সী মেয়েকে শ্লীলতাহাণীর চেষ্ঠা করে মনির।

এনিয়ে ঝুমুর তার দুলাভাই শহিদুলকে জানালে মনিরকে হত্যা পরিকল্পনা করা হয়। গত বছরের ১২ ডিসেম্বর মায়ের মৃত্যুর খবর শুনে স্ত্রীর ভগ্নিপতি শহিদুলের ট্রলারে করে পিরোজপুর যাবার পথে মনিরকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।

পরে তার মরদেহ ২১ ডিসেম্বর সদর উপজেলার ছোটফা গ্রামের মধুমতি নদী থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনার নিহতের পিতা মোঃ সানু খাঁ বাদী হয়ে ৭ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মোজাম্মেল হোসেন মুন্না/গোপালগঞ্জ