আটক। প্রতীকী ছবি

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় বারতোপা গ্রামে পারিবারিক কলহের জেরে শিশুপুত্র কাওছার ইসলামকে (২) গলা কেটে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে বাবা রাজুকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ।

রোববার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে এঘটনা ঘটে। আটক রাজু জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ থানার রামপুরা এলাকার মো. হানিফার ছেলে।

শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বেলাল হোসেন জানান, রাজু তার শিশুপুত্র, স্ত্রী ও শাশুড়িকেসহ শ্রীপুর উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের বারতোপা গ্রামের মহর আলীর বাড়ীতে ভাড়া থাকেন।

সেখানে থেকে রাজু রাজমিস্ত্রীর কাজ করেন এবং তার স্ত্রী কামরুননাহার স্থানীয় বারতোপা এলাকায় খানটেক্স নামের এক পোশাক কারখানায় চাকুরি করেন।

প্রতিদিনের ন্যায় সকালে স্ত্রী তার কর্মস্থলে চলে যান। স্ত্রী কারখানা থেকে বাসায় ফেরার আগে রোববার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে খালি ঘরে খাটের উপর শুইয়ে কাওসারকে চাকু (সুতা কাটার চাকু) দিয়ে গলা কেঁটে হত্যার চেষ্টা চলায়।

এসময় শিশুটির চিৎকার শুনে বাইরে থাকা শিশুটির নানী ঘরে ঢুকেন এবং গলা কাটা রক্তাক্ত অবস্থায় নাতি কাওসারকে তিনি ডাক-চিৎকার শুরু করেন।

এসময় প্রতিবেশিরা গিয়ে রাজুকে আটক করে পুলিশে দেয় এবং কাওসারকে উদ্ধার করে স্থানীয় আল হেরা হাসাপাতালে নিয়ে যায়।

পারিবারিক কলহের জেরেই ওই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

হাসপাতালে থাকা শিশুটির মামা সাইদুর রহমান জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে কাওসারকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়েছে। এখানকার চিকিৎসকরা তার চিকিৎসা শুরু করেছেন।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লিয়াকত আলী জানান, ঘটনার পরপরই শিশুটির বাবা রাজুকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। এঘটনায় পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

-শহীদুল ইসলাম