বদলগাছীতে মরদেহ দেখতে ভিড়

গাইবান্ধা জেলার সাদুল্যাপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের প্রতিপক্ষের হামলা ও ছুরিকাঘাতে মমিনা বেগম (৩৬) নামে এক নারীকে খুনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এসময় নিহতের বাড়িঘর ভাঙচুরের পর অগ্নিসংযোগ করে প্রতিপক্ষরা।

হামলার ঘটনায় নিহত মমিনার স্বামী ও ছেলে আহত হয়েছেন।

খবর পেয়ে পুলিশ শুক্রবার (১৩ ডিসেম্বর) দুপুরে সাদুল্যাপুর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের চিকনী গ্রাম থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

এরআগে, বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে চিকনী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মমিনা বেগম (৩৬) ওই গ্রামের কৃষক এমদাদুল হকের স্ত্রী। আহত এমদাদুল হক ও তার ছেলে বর্তমানে সাদুল্যাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, চিকনী গ্রামের মুছা আলী আকন্দের সঙ্গে একই গ্রামের এমদাদুল হকের দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিলো।

কিছুদিন আগে ওই বিরোধপূর্ণ জমি দখলে নেয় এমদাদুল হক। এরেই জেরে মুছা আলী তার লোকজন নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে এমদাদুলের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে।

এসময় এমদাদুল ও তার স্ত্রী মমিনা বেগম বাঁধা দেয়ায় তাদের উপর হামলা করে মুছার লোকজন। এক পর্যায়ে মুছার লোকজন মমিনাকে ছুরিকাঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় মমিনার। হামলার ঘটনায় এমদাদুল ও তার ছেলে আহত হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সাদুল্যাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদ রানা জানান, খবর পেয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী এমদাদুল হক বাদি হয়ে ২১ জনকে আসামি করে সাদুল্যাপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।