গবাদি পশুদের জন্য বানানো হলেও অ্যাপটি চালাবেন মূলত প্রাণির মালিকই। ছবি : সংবাদ প্রতিদিন

প্রাণ থাকলেই প্রাণী । প্রাণী মানেই প্রেম। প্রেমের অধিকার কি শুধু মানুষের? বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকর্ষণের অধিকার কি শুধু মনুষ্যজাতির একার? চতুষ্পদ প্রাণীগুলির কি প্রেম করার কোনও অধিকার নেই? এক তরুণ প্রযুক্তি ব্যবসায়ীর এমনটাই দাবি। তার মতে মানুষের মতো পশুদেরও প্রেম করার অধিকার আছে। আর সে কারণে, তিনি বানিয়ে ফেলেছেন আস্ত একটা অ্যাপ। যাতে গরু এবং বলদের মতো গবাদি পশু খুঁজে পাবে তাদের ‘পারফেক্ট ম্যাচ’।

হেক্টর নামে এক মার্কিন স্টার্ট আপ সংস্থা টিন্ডারের মতো গবাদি পশুদের জন্য একটি অ্যাপ এনেছেন। যে অ্যাপে খোলা যাবে গবাদি পশুর অ্যাকাউন্ট। এবং খোঁজা যাবে ম্যাচ। বিপরীত লিঙ্গের অর্থাৎ গরুর সঙ্গী হিসেবে বলদের প্রোফাইল পছন্দ হলে করতে হবে রাইট সোয়াইপ। পছন্দ না হলে পরের অপশনটি দেখার জন্য যেতে হবে লেফ্ট সোয়াইপ। বলদের ক্ষেত্রও ঠিক তাই, বিপরীত লিঙ্গ অর্থাৎ গরু পছন্দ হলে করতে হবে রাইট সোয়াইপ, না হলে লেফ্ট সোয়াইপ করলে পাওয়া যাবে পরের প্রোফাইল। গরু এবং বলদ উভয়ের প্রোফাইলেই থাকছে তাদের যাবতীয় বর্ণনা। দেওয়া হবে, গরু বা বলদের দৈর্ঘ্য, ওজন, সিংয়ের দৈর্ঘ্য, খুরের দৈর্ঘ্য৷ কিন্তু গরু তো আর মোবাইলে সোয়াইপ করতে বসবে না। তারা তো এসব বোঝে না। তাহলে উপায়? সংস্থাটি বলছে, গরুর হয়ে অ্যাকাউন্টগুলি অপারেট করবে তাদেরই মালিক। মালিকই নিজের পোষ্যর জন্য খুঁজে দেবে পারফেক্ট ম্যাচ।

আসলে হেক্টার যে অ্যাপ বানিয়েছে। পুরোটাই ‘টিন্ডার’ এর মতো। শুধু মানুষের বদলে এখানে থাকবে গরু আর বলদের অ্যাকাউন্ট। এই অ্যাপটির নাম দেওয়া হয়েছে টুডের। গরু প্রজননের জন্য তৈরি হওয়ামাত্রই তার মালিক টুডেরে অ্যাকাউন্ট খুলে দিতে পারবেন। সেই অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে একদিকে যেমন ভালো প্রজননের সঙ্গী খুঁজে পাওয়া যাবে তেমনি আবার পশুর অনলাইন কেনাবেচাও নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। কার্যক্ষেত্রে এটি একটি ব্যবসায়ীক অ্যাপ। কিন্তু মজা করে সংস্থাটি ডেটিং সাইটের আঙ্গিকে অ্যাপটি বানিয়েছে। আর তা ব্রিটেনে বেশ জনপ্রিয়তা পাচ্ছে।

 

জে