এই গরমে স্বাস্থ্যের নানা সমস্যা এবং মিনারেলের ঘাটতি দেখা যায়। ছবি: সংগৃহীত

এই গরমে স্বাস্থ্যের নানা সমস্যা যেমন- ডিহাইড্রেশন, ত্বকের সংবেদনশীলতা এবং ভিটামিন এবং মিনারেলের ঘাটতি দেখা যায়। এ সময় বেশি বেশি মৌসুমি ফল খাওয়া উচিত। এতে প্রচুর পরিমানে পুষ্টিগুণ আছে। জেনে নিন এ সময়ে যেসব খাবার আপনার খাদ্য তালিকায় থাকা জরুরি-

টমেটো

টমেটো অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস এবং ভিটামিন সিতে ভরপুর। ছবি: সংগৃহীত

টমেটো অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস এবং ভিটামিন সি’তে ভরপুর। তবে এতে লাইকোপিনের মতো উপকারী ফাইটোকেমিক্যাল রয়েছে, যা দীর্ঘস্থায়ী রোগ, বিশেষ করে ক্যান্সার প্রতিরোধে অবদান রাখে।

তরমুজ

তরমুজের মধ্যে রয়েছে লিকোপিন, যা সূর্যের থেকে ত্বকের কোষগুলিকে রক্ষা করে। ছবি: সংগৃহীত

তরমুজের উচ্চ পানির সামগ্রী আপনাকে ঠান্ডা এবং জলবাহী রাখে। একই উচ্চ জল সামগ্রী আপনাকে পূর্ণ রাখবে। তরমুজের মধ্যে রয়েছে লিকোপিন, যা সূর্যের থেকে ত্বকের কোষগুলিকে রক্ষা করে।

কমলা

মিষ্টি সাইট্রাস এই ফলটি পটাসিয়ামে সমৃদ্ধ। ছবি: সংগৃহীত

মিষ্টি সাইট্রাস এই ফলটি পটাশিয়ামে সমৃদ্ধ। গরমে ঘামের মাধ্যমে পটাশিয়াম হারায়, যা আপনার পেশী ব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। আর কমলা এই পেশী ব্যাথাগুলিকে দূরে রাখে। কমলাতে প্রায় ৮০ ভাগ পানি আছে। তাই কয়েকটি কমলা গ্রীষ্মকালের দিনগুলিতে আপনাকে হাইড্রেট করে রাখবে।

বেরি

প্রতি কাপ বেরিতে রয়েছে ৮ গ্রাম ফাইবার। ছবি: সংগৃহীত

বেরি ফাইবারের মূল উৎস। বেরি এমন একটি খাদ্য, যা অনেকে এড়িয়ে যান। এর কারণ এই ফলটি খুব ব্যয়বহুল। কিন্তু সামান্য বেরিতে প্রচুর অসাধারণ গুণাবলি রয়েছে।  এতে ভিটামিন সি খুব বেশী এবং প্রতি কাপ বেরিতে রয়েছে ৮ গ্রাম ফাইবার।

আপেল ও নাশপাতি

দুইটি মাঝারি আকারের আপেল বা নাশপাতির মধ্যে ফাইবারের পরিমান ১.৫ গ্রাম থেকেও বেশি। ছবি: সংগৃহীত

আপেল ও নাশপাতিতে ফাইবারের পরিমান অনেক বেশি। সর্বোচ্চ পুষ্টির প্রভাবের জন্য আপেল এবং নাশপাতি রাখুন। দুইটি মাঝারি আকারের আপেল বা নাশপাতির মধ্যে ফাইবারের পরিমান ১.৫ গ্রাম থেকেও বেশি।

গ্রিন টি

গ্রিন টি ক্যান্সার এবং হৃদরোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে। ছবি: সংগৃহীত

গ্রিন টি ক্যান্সার এবং হৃদরোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে, কোলেস্টেরলকে কমিয়ে দিতে, আপনার বিপাককে পুনরুজ্জীবিত করতে এবং ডিমেনশিয়া দূরে রাখতে সাহায্য করে।

বাদাম

বাদামে থাকা ভিটামিন ই এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আমাদের ত্বক ও চুলের জন্য খুব উপকারী। ছবি: সংগৃহীত

কাঠ বাদাম, কাজু বাদাম, চিনা বাদামে বিদ্যমান অসম্পৃক্তফ্যাটি অ্যাসিড, প্রোটিন, ফাইবার, ভিটামিন, খনিজ পদার্থ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসমূহ হার্ট, ক্যান্সার ও অন্যান্য প্রদাহজনিত রোগের প্রতিরক্ষাকারী হিসেবে কাজ করে। বাদামে থাকা ভিটামিন ই এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আমাদের ত্বক ও চুলের জন্য খুব উপকারী। শরীরের ওজন কমাতেও বাদাম খুব উপকারী।

স্যালমন

মানুষের দেহের প্রয়োজনীয় পুষ্টি চাহিদা মিটিয়ে নানা রোগ থেকে রক্ষা করতে সক্ষম স্যালমন মাছ। ছবি: সংগৃহীত

মানুষের দেহের প্রয়োজনীয় পুষ্টি চাহিদা মিটিয়ে নানা রোগ থেকে রক্ষা করতে সক্ষম স্যালমন মাছ। এতে জিংক ও আয়োডিন আছে। জিংক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং আয়োডিন গলগণ্ড রোগ প্রতিরোধ করে।

আজকের পত্রিকা/রিয়া/সিফাত

SOURCEওয়েমন্স ডে