দশ জনের মধ্যে সাতজন নারী স্বামীকে ঠকাচ্ছেন। প্রতীকী ছবি: সংগৃহীত

প্রতি দশজনের মধ্যে সাতজন নারীই নিজের স্বামীকে ঠকাচ্ছেন! ডেটিং অ্যাপ গ্লিডেন এমনই তথ্য পেশ এবং নিশ্চিত করছে। এই অ্যাপ ২০০৯ সালে ফ্রান্সে লঞ্চ হয়েছিল। ২০১৭ সাল থেকে ভারতে পথ চলা শুরু করেছিল গ্লিডেন। প্রায় পাঁচ লাখ ভারতীয় পুরুষ ও নারী এই মুহূর্তে গ্লিডেন অনলাইন ডেটিং অ্যাপ ব্যবহার করেন। তাদেরকে নিয়েই একটি গবেষণা করেছে সংস্থাটি।

গ্লিডেন জানিয়েছে, বেঙ্গালুরু, মুম্বাই ও কলকাতা, এই তিন শহরের নারীরা সব থেকে বেশি পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ছেন। পাঁচ লাখ গ্লিডেন ব্যাবহারকারির মধ্যে ২০ শতাংশ পুরুষ ও ১৩ শতাংশ নারী পরকীয়ায় জড়ানোর কথা সরাসরি স্বীকার করেছেন। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ৩৪ থেকে ৪৯ বছরের নারীদের মধ্যে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ার প্রবণতা বেশি।

গবেষণায় উঠে এসেছে আরও কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য। গবেষণা অনুযায়ী দশজন নারীর মধ্যে সাতজন নারী পরপুরুষের সঙ্গে পরকীয়ায় লিপ্ত হন।

বিবাহিত জীবনের বাইরে একজন সঙ্গী খুঁজে পাওয়ার মধ্যে তারা আলাদা উত্তেজনা অনুভব করেছেন বলেও দাবি করেছেন। ছবি প্রতীকী : সংগৃহীত

পরকীয়ায় লিপ্ত হওয়ার পেছনের কারণ হিসেবে কেউ বলেছেন, স্বামীকে বাড়ির কোনো কাজে তারা প্রয়োজনমতো পান না। আবার অনেকেই বলেছেন, দীর্ঘদিনের দাম্পত্য জীবন নিরস হয়ে পড়েছে। বিবাহিত জীবন থেকে তারা আর আলাদা কোনো উত্তেজনা পাচ্ছেন না। তাই পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ছেন।

আশ্চর্যজনক হলেও সত্যি যে গ্লিডেন বলছে, দশ জনের মধ্যে চার জন নারী দাবী করেছেন পরপুরুষের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ার পর তাদের স্বামীর সঙ্গে সম্পর্কের ভিত্তি আরও মজবুত হয়েছে।

এছাড়াও পাঁচ লাখ গ্লিডেন ব্যাবহারকারির মধ্যে ৭৭ শতাংশ নারী জানিয়েছেন, দাম্পত্য জীবন নিরস হয়ে যাওয়াই তাদের পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ার অন্যতম কারণ। বিবাহিত জীবনের বাইরে একজন সঙ্গী খুঁজে পাওয়ার মধ্যে তারা আলাদা উত্তেজনা অনুভব করেছেন বলেও দাবি করেছেন।

আজকের পত্রিকা/বিএফকে