সাতক্ষীরার এক ভিক্ষুক নারীর হাতে আইডি কার্ড। ছবি : সংগৃহীত

সারাদেশে ছেলেধরা সন্দেহে কয়েকজন পিটিয়ে হত্যা করেছে একশ্রেণির উত্তেজিত জনতা। অনেককে পিটিয়ে আহত করা হচ্ছে। এই আতঙ্ক আর ভয়ে সাতক্ষীরার ভিক্ষুকরা তাদের সাথে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) নিয়ে ঘুরছেন।

একই আতঙ্কে আছেন সাতক্ষীরার অন্য শ্রেণি পেশার মানুষরাও। এমনকি অনেককে ভয়ে রাতে বারান্দায়ও ঘুমাতে দেখা গেছে।

শহরের রাজার বাগান এলাকা ভিক্ষা করতে আসা মর্জিনা বেগম ও আয়েশা খাতুনের কাছে দেখা যায় এনআইডি কার্ড।

আয়েশা খাতুন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘বিভিন্ন এলাকায় ছেলেধরা বলে পিটিয়ে মারা হচ্ছে। সে কারণে আমরা ভয়ে আছি। কখন ছেলেধরা বলে মারা শুরু করে। আগের তুলনায় কম বের হচ্ছি। পরিচিত এলাকার বাইরে ভিক্ষা করতে যাচ্ছি না। সঙ্গে আইডি কার্ড রাখছি। যাতে বিপদে পড়লে এটা দেখিয়ে বাঁচতে পারি।’

ইতোমধ্যে সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের ফেসুবকে পেজে সতেনতামূলক পোস্ট দেওয়া হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, গুজব ছড়াবেন না, আইন নিজের হাতে তুলে নেবেন না। গুজবে বিভ্রান্ত হয়ে ছেলেধরা সন্দেহে কাউকে গণপিটুনি দিয়ে আইন নিজের হাতে তুলে নেবেন না।

সাতক্ষীরার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার ইলতুৎমিশ বলেন, ‘ছেলেধরা গুজবের বিষেয়ে সবাইকে সচেতন করতে বিভিন্ন এলাকা মাইকিং করা হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থীদের সচেতন করতে সভা করা হয়েছে। গুজবে কান না দিয়ে সবাইকে সবাইকে সতেচন হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।’

আজকের পত্রিকা/সাতক্ষীরা