প্রথমবারের মত খুলনাতে দারাজ আয়োজন করল সেলার সামিট-২০১৯। ছবি: সংগৃহীত।

অনলাইন মার্কেটপ্লেস দারাজ বাংলাদেশ ই-কমার্স বিক্রেতাদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে প্রথমবারের মত খুলনাতে আয়োজন করল সেলার সামিট-২০১৯। গত বছর আলিবাবা ইকোসিস্টেমে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার পরে দারাজে যেসব নতুন প্রযুক্তিগত পরিবর্তন এসেছে সে সম্পর্কে বিক্রেতাদের অবগত করাই এই আয়োজনের মূল লক্ষ্য।

খুলনা ক্লাবে অনুষ্ঠিত এই আয়োজনের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক।

তিনি বলেন, দারাজের এই কার্যক্রম দেখে অনেক কোম্পানি এগিয়ে আসবে বলে আমি আশা করি। মানুষের সেবায় প্রতিনিয়তই পাশে থাকবে দারাজ এটাই আমার প্রত্যাশা। সর্বোপরি, দারাজের সফলতা কামনা করে সকলকে দারাজের সদস্য হওয়ার আহবান জানাই।

দারাজ বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ম্যানেজিং ডিরেক্টর সৈয়দ মোস্তাহিদল হক, চিফ অপারেটিং অফিসার খন্দকার তাসফিন আলম ও অন্যান্য উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা। প্রায় ২৫০ জন বিক্রেতাদের নিয়ে সামিট শুরু হয় বিকেল সাড়ে ৫ টায় এবং শেষ হয় নৈশভোজের মধ্য দিয়ে রাত ৮ টায়। আলোচনায় উল্লেখযোগ্য বিষয়গুলো ছিল দারাজে প্রযুক্তির নতুন সংযোজন ও বিক্রেতাগণ কিভাবে সেই প্রযুক্তি ব্যবহার করে আরও সহজে তাদের ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবেন।

এ উপলক্ষে দারাজ বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ম্যানেজিং ডিরেক্টর সৈয়দ মোস্তাহিদল হক বলেন, গত বছর আমরা শুধু ঢাকা আর চট্টগ্রামে সেলার সামিটের আয়োজন করেছিলাম। এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে ও দেশের সকল বিক্রেতাদের সুবিধার কথা চিন্তা করে এবারে সেলার সামিট বিভিন্ন জেলায় আয়োজন করছি আমরা।

তিনি বলেন, আমরা জানি দারাজ বাংলাদেশ শুধুমাত্র ঢাকা ভিত্তিক বিক্রেতাদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়, সারা দেশেই ছড়িয়ে আছে। তাই ভবিষ্যতে আমরা তাদের কথা মাথায় রেখে আরও বড় পদক্ষেপ নেব। আশা করছি দারাজের উন্নত ও নতুন প্রযুক্তির ফলে বিক্রেতা, উদ্যোক্তা এবং ক্রেতা সকলেই লাভবান হবেন।