ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানি। ছবি: সংগৃহীত

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন ক্ষমতায় থাকা দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতৃত্বে পরিবর্তন আসছে কিনা বিষয়টি এখনো ধোঁয়াশার মধ্যে রয়েছে।

১৪ সেপ্টেম্বর শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে এ বৈঠক হবে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, এই বৈঠকের আলোচ্যসূচিতে রাখা হয়েছে- ছাত্রলীগের বর্তমান অবস্থা, আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন, স্থানীয় নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীকে শোকজ-পরবর্তী করণীয় এবং মদদদাতাদের বিষয়সহ নানা বিষয়ে আলোচনা হতে পারে।

বর্তমানে সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানির ওপর আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ হাসিনাসহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকার্মীরা ক্ষুব্ধ।

সম্প্রতি বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করেছে মর্মে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশের পর থেকে বিষয়টি নিয়ে হইচই শুরু হয়। তবে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানিয়েছিলেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগের বিকল্প নেতৃত্ব দেখতে বলেছেন, এমন খবর প্রকাশের পর সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছিলেন, ছাত্রলীগ নিয়ে আলোচনা হয়েছে, তবে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

তবে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে ছাত্রলীগ বিষয়ে ১৪ সেপ্টেম্বর শনিবার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।

এদিকে ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে উন্নয়ন প্রকল্প থেকে ৪-৬ ভাগ চাঁদা দাবির অভিযোগ করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম। তবে এসব ঘটনায় নিজেদের অবস্থান ব্যাখ্যা করে প্রধানমন্ত্রীর কাছে চিঠি দিয়েছেন সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী।

এর আগে ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর গণভবনে প্রবেশের পাস বাতিল করা হয়।

সূত্র জানায়, গণভবনে প্রবেশের ক্ষেত্রে ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের স্থায়ী অনুমতি ছিল। ফলে এতদিন গণভবনে প্রবেশের জন্য অন্য অনেকের মতো তাদের আলাদা কোনো অস্থায়ী পাস বা প্রবেশ কার্ড নেওয়া লাগতো না। যেকোনো সময় তারা গণভবনে প্রবেশ করতে পারতেন।

এ সুবিধা বাতিলের ফলে ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এখন গণভবনে প্রবেশ করতে চাইলে দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের কাছ থেকে অন্যদের মতো আলাদা অস্থায়ী পাস নিতে হবে। আগের মতো সরাসরি গণভবনে প্রবেশ করতে পারবেন না।

৭ সেপ্টেম্বর বিতর্কিত কর্মকাণ্ড এবং অযোগ্যতার কারণে গণভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার ও সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিষয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষোভ প্রকাশ করেন বলে জানা গেছে।

আজকের পত্রিকা/কেএফ