মাহমুদ উল্লাহ্‌
বিজনেস করেসপন্ডেন্ট

জনসন এন্ড জনসন বেবি পাউডার। ছবি: সংগৃহীত

সম্প্রতি ভারত সরকারের এক পরীক্ষায় জনসন অ্যান্ড জনসনের বেবি পাউডারে ক্ষতিকর অ্যাসবেস্টসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।  এ কারণে ভারতে দুটি কারখানায় আবার ওই পাউডারের উৎপাদন শুরু হয়েছে বলে রয়টার্সকে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে জনসন অ্যান্ড জনসন।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এই বহুজাতিক কোম্পানির তৈরি সাবান, শ্যাম্পু, লোশন ও পাউডারসহ বিভিন্ন পণ্য বাংলাদেশেও ব্যাপক জনপ্রিয়।

বাংলাদেশের বাজারে এ কোম্পানির যেসব পণ্য পাওয়া যায় তা মূলত ভারতের কারখানাতেই উৎপাদিত। বেবি পাউডারে ক্যান্সার সৃষ্টিকারী উপাদান থাকায় যুক্তরাষ্ট্রের আদালত জনসনকে ৪৭০ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দিলে গতবছর ডিসেম্বরে ভারত সরকার পরীক্ষার উদ্যোগ নেয়। আর তাতে বাংলাদেশেও উদ্বেগ তৈরি হয়।

এই প্রেক্ষাপটে রাষ্ট্রীয় মান নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসটিআই বাজার থেকে জনসন অ্যান্ড জনসনের পাউডার সংগ্রহ করে আইসিডিডিআর,বি, বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদ (সায়েন্স ল্যাবরেটরি)সহ গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি গবেষণাগারে পাঠায়।

কিন্তু সক্ষমতা না থাকায় বাংলাদেশের কোনো পরীক্ষাগারে অ্যাজবেস্টসের উপস্থিতি পরীক্ষা করা সম্ভব হয়নি বলে ফেব্রুয়ারির শুরুতে জানানো হয় বিএসটিআইয়ের পক্ষ থেকে। অবশ্য জনসন অ্যান্ড জনসন বরাবরই দাবি করে আসছে, তাদের পণ্য অ্যাসবেস্টসমুক্ত এবং তা কোনোভাবেই ক্যান্সারের কারণ নয়।