দেশে ফিরে এক সংবাদ সন্মেলনে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছবি : আজকের পত্রিকা

মা যেমন তার সন্তানের খোঁজ খবর রাখেন, ঠিক তেমনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার খবর নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ১৫ মার্চ বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে তিনি বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের বিজি ০৮৫- ফ্লাইটে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান।

বিমানবন্দরে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা তাকে অভ্যর্থনা জানান। পরে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী, দেশবাসী ও দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমার ঋণের বোঝা আরো বেড়ে গেলো। দেশবাসী, জনগণ, আমার দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা আমার জন্য দোয়া করেছেন, সকলের কাছে আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, তার অনুপস্থিতিতে দলকে এগিয়ে নিতে নেতাকর্মীরা যে সম্মিলিত প্রয়াস চালিয়েছেন, তাতে তিনি মুগ্ধ।

দেশে ফিরে এক সংবাদ সন্মেলনে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছবি : আজকের পত্রিকা

আওয়মী লীগ সাধারণ সম্পাদককে অভ্যর্থণা জানাতে বিকেল চারটা থেকেই বিমানবন্দরে জড়ো হন দলের কেন্দ্রীয় ও তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। দেশে ফিরে বিমানবন্দরে উপস্থিত নেতাকর্মী ও সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন, ওবায়দুল কাদের। এসময়ে তিনি আবেগতাড়িত কণ্ঠে সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

সিঙ্গাপুরে প্রায় ৭০ দিন চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘কোরআন শরিফ পড়ে আমার জন্য দোয়া করেছেন প্রধানমন্ত্রী। মা যেমন তার সন্তানের খোঁজ খবর রাখেন, ঠিক তেমনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার খবর নিয়েছেন। এজন্য তার কাছে কৃতজ্ঞ।’

উল্লেখ্য, ৩ মার্চ হার্ট অ্যাটাকের পর ওবায়দুল কাদেরকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরদিন ৪ মে মুমূর্ষু অবস্থায় ওবায়দুল কাদেরকে সিঙ্গাপুরে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর থেকে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন ছিলেন। ২০ মার্চ মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে তার বাইপাস সার্জারি হয়। গত ৫ এপ্রিল তিনি হাসপাতাল ছাড়লেও সেখানে একটি ভাড়া বাসায় ওঠেন। সেখানে থেকে তিনি ফলোআপ চিকিৎসায় ছিলেন।

আজকের পত্রিকা/রাজনীতি/আ.স্ব