বেতন না পেয়ে কারখানায় ধ্বর্না দিচ্ছেন নারী শ্রমিকরা।

গাজীপুর মহানগরীর কোনাবাড়ীতে চাকরির থেকে বাদ দিয়ে বেতন না দিয়ে তালবাহানার অভিযোগ উঠেছে একটি পোশাক কারখানার বিরুদ্ধে।

২১ এপ্রিল রবিবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে যমুনা নীট (বিডি) নামক যার মালিক রুশুম রেওয়াজ তুহিন, কোনাবাড়ী হাউজিং সোসাইটির ভিতরে একটি পোশাক কারখানার সামনে কিছু নারী শ্রমিকদের বিক্ষুব্ধ অবস্থায় দেখা যাচ্ছে।

বিক্ষুব্ধ নারী শ্রমিকদের সাথে আলাপ করে জানা যায়, তাদেরকে চাকরি থেকে হঠাৎ করে বিদায় করে দেয়া হয়েছে কিন্তু তাদের দেনা পাওনা পরিশোধ করেনি।

নারী শ্রমিকদের বলে দিয়েছে তোমাদের বেতন আগামী মাসের ১০ তারিখ দিব (অর্থাৎ যে মাসে চাকরি থেকে বাদ দিয়েছে ঠিক তার পরের মাসের ১০ তারিখ) অথচ নারী শ্রমিকরা ১০ তারিখ থেকে প্রতিদিনই কারখানার গেটের সামনে বসে থাকে পাওনা বেতন টাকার জন্য।

যমুনা নীট বিডি।

মালিক পক্ষের লোক তাদেরকে প্রতিদিনই বলে আজ না কাল বেতনের আশায় তারা প্রতিদিন কারখানার গেটে এসে বসে থাকে অসহায় নারী শ্রমিকরা।

ফাতেমা নামের এক হেলপার জানান, আমি ৬ মাস যাবত এখানে চাকরি করি। হঠাৎ আমাকে বলে দেন আগামী মাসের থেকে তুমি আর ডিউটিতে আসবে না। বলুনতো আমাকে বাদ দিয়েছে কোন আপত্তি নেই কিন্তু আমার পাওনা টাকা আমাকে দিয়ে দিক।

এদিকে সরকারি বেতন স্কেল অনুযায়ী আমাদের টাকা ধার্য করার কথা অথচ আমার বেতন ধার্য করেছে ৪৫০০টাকা। তাও আবার হঠাৎ করে না করে দিল।

কারখানাটির ম্যানেজার রোমান হোসেন জানান, আমরা আজই বেতন দিব। আমাদের মধ্য কে বা কারা বলেছে আগামী বুধবার দিব এটা আমার জানা নেই, তবে একটা মিস্টেক হয়েছে। তখন সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে যারা এখানে উপস্থিত ছিলেন তাদেরকে ডেকে বেতন পরিশোধ করেন।

ম্যানেজার রোমান হোসেন এর কাছে তাদের বের করার বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা বের করে দেইনি তারা নিজেরাই চাকুরী ছেড়ে চলে গেছেন।

এখানে আরো দেখা যাচ্ছে অপ্রাপ্ত বয়স্ক নারী শ্রমিক দিয়ে কারখানাটি পরিচালনা করা হচ্ছে।

মো.শহিদুল ইসলাম/গাজীপুর