কুলাউড়া আসার পথে রেলপথের একটি কালভার্ট ভেঙে পেছনের কয়েকটি যাত্রীবাহী বগি খালে পড়ে যায়। ছবি : সংগৃহীত

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় সিলেট থেকে ঢাকাগামী ট্রেন দুর্ঘটনার কারন উদ্ঘাটনের জন্য দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ২৪ জুন সোমবার রেলপথ মন্ত্রণালয় এই কমিটি গঠন করেছে।

উভয় তদন্ত কমিটিকে আগামী ০৩ (তিন) কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ২৪ জুন দূর্ঘটনায় বিকেল পর্যন্ত চারজনের মৃতদেহ উদ্ধারের তথ্য পাওয়া গেছে।

দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে রেলপথ মন্ত্রণালয় থেকে আর্থিক সাহায্য করা হবে বলে রেলপথ মন্ত্রী মো. নুরুল ইসলাম সুজন জানিয়েছেন। এছাড়া আহতদের চিকিৎসার জন্য রেলপথ মন্ত্রী সার্বক্ষণিক খোঁজ রাখছেন ।

২৩ জুন রবিবার রাত সাড়ে ১১টায় মৌলভীবাজার কুলাউড়া উপজেলার বরমচল এলাকায় ট্রেন দুর্ঘটনা ঘটে। সিলেট থেকে ঢাকাগামী উপবন এক্সপ্রেস (৭৪০) ট্রেনে দুর্ঘটনা কারন অনুসন্ধানের জন্য জোনাল প্রধান পর্যায়ের তদন্ত কমিটির আহবায়ক হলেন ১. চীফ মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ার (পূর্ব)-মোঃ মিজানুর ।

এই কমিটির সদস্য রয়েছে তিন জন, এরা হলেন, ১. চীফ ইঞ্জিনিয়ার (পূর্ব)-আ: জলিল, ২. চীফ অপারেটিং সুপারিনটিন্ডেন্ট (সিওপিএস)-সুজিত কুমার ও ৩. চীফ সিগনাল এন্ড টেলিকম অফিসার (পূর্ব)-ময়নুল ইসলাম।

এছাড়া বিভাগীয় কর্মকর্তা পর্যায়ের অপর কমিটির আহবায়ক হলেন কমলাপুর ডিটিও মো: ময়নুল ইসলাম। এই কমিটির সদস্য করা হয়েছে ৪ জন কে। এরা হলেন, ১. ডিএমই (পূর্ব) শাহ সুফী নূর মোহাম্মদ, ২.কমলাপুর এর ডিএমও ডা: আ: আহাদ, ৩. কমলাপুর ডিএসটিই আবু হেনা মোস্তফা আলম ও ৪. ডিইএন-২ আহসান জাবির।

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় সিলেট থেকে ঢাকাগামী ট্রেন দুর্ঘটনার পর উদ্ধার কাজে বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক তোফায়েল ইসলাম ।

সিলেট আখাউড়া রেলপথের শমশেরনগর স্টেশন সূত্রে জানা যায়, ২৩ জুন রাত সাড়ে ১১টায় ঢাকগামী রেল আন্তনগর উপবন এক্সপ্রেস বরমচাল স্টেশন অতিক্রম করে কুলাউড়া আসার পথে রেলপথের একটি কালভার্ট ভেঙে পেছনের কয়েকটি যাত্রীবাহী বগি খালে পড়ে যায়।

ঘটনার পর থেকে সিলেটের সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। দুর্ঘটনার পরপরই এলাকার কয়েক হাজার মানুষ উদ্ধার কাজে শামিল হয়। তারা আহত যাত্রীদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। পুলিশ সদস্যরা সঙ্গে সঙ্গেই উদ্ধারে নামে।

আজকের পত্রিকা/আর.বি/