কুমিল্লার বুড়িচংয়ে আমবাগানে উপজেলা বিএনপির সম্মেলন

দুই দফা স্থান পরিবর্তন করে সম্মেলন করতে না পেরে অবশেষে নির্ধারিত স্থান থেকে প্রায় ১৫ কিলোমিটার দূরে আম বাগানে দ্বিবার্ষিক সম্মেলন করেছে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলা বিএনপি।

সোমবার সকালে উপজেলার ভারেল্লা ইউনিয়নের সো›দ্বমে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত করতে মাস ব্যাপী আয়োজন করে উপজেলা বিএনপি। পরে পুলিশের বাঁধায় স্থান পরিবর্তন করে আধা কিলোমিটার দূরে নেয়া হয়। সেখানেও পুলিশ অনুমতি না দেয়ায় পরবর্তীতে দুপুরে ভারতীয় সীমান্তবর্তী শশীদল ইউনিয়নের লোহাইমুড়ি গ্রামের এক আম বাগানে দ্বিবার্ষিক সম্মেলন করে তারা।

সম্মেলনের আয়োজকরা বলেন পুলিশের কাছে আবেদন করার পরও তারা অনুমতি দেয় নি। ফলে এখানে সম্মেলন করতে হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, তাদের সম্মেলনের কোন অনুমতি ছিল না।

সম্মেলনে প্রধান অতিথি কুমিল্লা দক্ষিন জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক আমিনুর রশিদ ইয়াছিন সহ বক্তাগন বলেন, পেয়াজসহ দ্রব্যমূল্য উর্দ্ধগতিতে জনগন আজ দিশেহারা। লুটপাট চলছে সর্বত্র, চারিদিকে একটা অস্থির অবস্থা বিরাজ করছে, তা নিয়ন্ত্রনে সরকার অক্ষম অথচ বিএনপির পাঁচ হাজার লোক একসাথে হলে সরকার ভয় পায়।

এ অবস্থা থেকে জাতিকে মুক্তি দিতে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার কোন বিকল্প নেই। আজকের বিএনপির সম্মেলনকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগ এবং তার পুলিশ বাহিনীর বাধাদান একটি নির্যাতনের সামিল। এটা স্বৈরাচারি আচরনের বহি:প্রকাশ ছাড়া আর কিছুই নয়। এই সম্মেলন থেকে আমরা এই ঘটনার তীঘ্র নিন্দা জানাই।

তারা বলেন জনগনের উপর অন্যায় নির্যাতন করতেই বেগম খালেদা জিয়াকে জেলে আটকে রাখা হয়েছে। তাকে মুক্তি দিলে আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীরা পালাবার পথ খুজে পাবে না।

তারা বলেন, নেত্রীকে অন্যায়ভাবে জেলে আটকে রেখেছে। দেশে গনতান্ত্রিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে আমাদের প্রধান দায়িত্ব নেতৃকে মুক্ত করা। বাঁচার পথ একটাই আমাদের সুসংগঠিত হতে হবে, ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক মিয়া, সাবেক এমপি অধ্যাপক মোহাম্মদ ইউনুস, সাবেক এমপি মাহবুবুর রহমান, ব্রাহ্মনপাড়া উপজেলা বিএনপির আহবায়ক  জসিম উদ্দিন।

সম্মেলনে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক এটিএম মিজানুর রহমানকে সভাপতি এবং কবির হোসেনকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি গঠন করা হয়।

-শাকিল মোল্লা