চিলাহাটি-হলদিবাড়ি স্টেশন

বহুল প্রত্যাশিত বাংলাদেশের চিলাহাটি হতে ভারতের সাথে রেল সংযোগ স্থানের লক্ষে হলদিবাড়ি সীমান্ত পর্যন্ত রেললাইনের নির্মান কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন রেলপথ মন্ত্রী মো: নুরল ইসলাম সুজন।

আগামীকাল শনিবার দুপুরে চিলাহাটি স্টেশনে ৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রায় সাড়ে সাত কিলোমিটার রেলপথ নির্মানের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও কাজের শুভ উদ্বোধন করবেন রেলপথ মন্ত্রী।

অপরদিকে ২০১৮ সালের ১৪ মার্চ ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের বরাদ্দকৃত ৩১ কোটি রুপি ব্যয়ে ভারতের হলদীবাড়ি অংশে ৪ দশমিক ৩৪ কিলোমিটার রেলপথ স্থাপনের কাজ সমাপ্ত করে।

ইতোমধ্যে বাংলাদেশের নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার চিলাহাটী ডাঙাপাড়া সীমান্ত বিপি ৭৮২/২ এস নম্বর পিলারের নিকটবর্তী কাটাতারের বেড়া পর্যন্ত পরীক্ষামূলকভাবে রেলের ইঞ্জিন চালায় ভারতীয় রেল কতৃপক্ষ।

বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো: শামছুজ্জামান জানান, উভয় দেশের ১১ দশমিক ৩৪ কিলোমিটার রেললাইনের মধ্যে বাংলাদেশ অংশের প্রায় সাড়ে– সাত কিলোমিটার রেললাইন নির্মানের কাজ করছে ম্যাক্স ইন্টারন্যাশনাল নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। রেলপথটি নির্মাণের কাজ ২০২১ সালের জানুয়ারির মধ্যে শেষ করা হবে।

ভারতের সঙ্গে রেলসংযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে চিলাহাটি এবং চিলাহাটি বর্ডারের মধ্যে রেলপথ নির্মাণ শীর্ষক প্রকল্পের ৮০ কোটি ১৭ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয় ২০১৮ সালের ২০ সেপ্টেম্বর একনেকের সভায়। এই বরাদ্দকৃত অর্থে সাড়ে ৭ কিলোমিটার রেলপথ, ব্রীজ, চিলাহাটি রেলষ্টেশনকে আন্তর্জাতিক মানের স্টেশনে রূপান্তর করা হবে।

প্রসঙ্গত, ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের সময় ১৯৬৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে চিলাহাটি হলদিবাড়ি রেলপথটি একেরারেই বন্ধ হয়ে যায়।

ইয়াছিন মোহাম্মদ সিথুন/নীলফামারী