সহকারী প্রকৌশলী প্রকাশ কান্তি রায়।

প্রকল্পের টাকা লুটপাটের সংবাদ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশের পর লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলা জনস্বাস্থ্য বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী প্রকাশ কান্তি রায়ের বিরুদ্ধে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর রংপুর বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বাহার উদ্দিন মৃধা সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ ছাড়া অনিয়মের প্রাথমিক তথ্য পাওয়ায় ইতোমধ্যে ওই সহকারী জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলীর চাকুরী সংক্রান্ত একটি ফাইল আটক করে দিয়েছে লালমনিরহাট নিবার্হী প্রকৌশলী মাইন উদ্দিন।

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর রংপুর বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বাহার উদ্দিন মৃধা ডেইলি বাংলাদেশকে জানান, যতটুকু কাজ হবে যত টুকুই বিল দেয়া উচিত ছিলো সহকারী প্রকৌশলী প্রকাশ কান্তি রায়ের। কিন্তু তিনি সে নির্দেশনা না মেনে বিল দিয়েছে এটা দুঃখ জনক।

এ ঘটনার দায়ভার জেলা নিবার্হী প্রকৌশলীও এড়াতে পারেন না। কাজের চেয়ে অতিরিক্ত বিল উত্তোলনের বিষয়টি আমিও আগে থেকে একটু জানতাম। মনে করে ছিলাম ঠিকাদার কাজ করে দিবেন। কিন্তু কাজ না করে ভিন্ন কৌশল গ্রহন করেন তা জানতাম না।

এ সংক্রান্ত খবর জনপ্রিয় সংবাদ মাধ্যম গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর বিষয়টি জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তর আমলে নিয়েছেন। ওই কর্মকতার্র বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ উঠেছে তা তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তর রংপুর বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বাহার উদ্দিন মৃধা।

উল্লেখ্য, হাতীবান্ধায় দৃষ্টি নন্দন পুকুর ও বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ প্রকল্পের নামে কাজ না করেই ১৮ লক্ষ টাকা লুটপাটের ফন্দি তৈরী করেছেন উপজেলা সহকারী জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী প্রকাশ কান্তি রায়।

প্রকল্পের ২০ ভাগ নিমার্ণ কাজের বিপরীতে প্রায় ২৬ লক্ষ মোট টাকার মধ্যে ১৮ লক্ষ টাকার বিল-ভাউচার দাখিল করে ঠিকাদারের কাছে আর্থিক সুবিধা নিয়ে ওই টাকা উত্তোলনে ঠিকাদারকে সুযোগ করে দিয়েছেন তিনি। সেই সুবিধার টাকা বৈধ করতে তিনি এখন চিঠি-পত্র চালাচালি করে ফন্দি তৈরী করছেন প্রকল্পটি যেন এখানেই শেষ হয়ে যায়।

নিম্নমানের কাজ ও অপরিকল্পিত ভাবে বোমা মেশিন দিয়ে পুকুর খনন করায় সামন্য বৃষ্টিতেই ভেঙ্গে গেছে পুকুরের পাড়।

অভিযোগ রয়েছে, বিলুপ্ত ছিটমহল গুলোতে নলকুপ ও স্যানিটেশন প্রকল্পে নানা অনিয়মের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা লুটপাট করেছেন হাতীবান্ধা উপজেলা সহকারী জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী প্রকাশ কান্তি রায়। এ ছাড়া নিয়মিত অফিস না করার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

-জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না/লালমনিরহাট