কাউখালীতে শিশু শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠান

আমরা নবীন বরণ শুনলেই মনে করি কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন শিক্ষার্থীদের বরণ করে নেয়ার অনুষ্ঠান।

এই প্রচলিত নিয়মের বাইরে গিয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য নবীন বরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও কাউখালী প্রতিবন্ধি বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল লতিফ খসরু।

বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) উপজেলার আমরাজুড়ী ইউনিয়নের ১৮নং পূর্ব আমারাজুড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এই ব্যতিক্রমধর্মী নবীন বরণের আয়োজন করা হয়।

নবীন বরণ অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তা ও বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ নবীন বরণ অনুষ্ঠানের শুরুতেই কোমলমতী শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করেন। এছাড়াও শিক্ষার্থীদের শিক্ষা উপকরণ হিসেবে কাগজ কলম দেওয়া হয়।

আমরাজুড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফারজানা আক্তার বলেন, প্রতিবছর শিক্ষানুরাগী আব্দুল লতিফ খসরু শিশুদের এই বরন অনুষ্ঠানে আয়োজন করে থাকেন যা আমাদের সকলের জন্য অনুকরনীয়।

নবীন বরণ অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তা আব্দুল লতিফ খসরু বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা হচ্ছে বাচ্চাদের গড়ে ওঠার প্রথম সোপান। শিক্ষা জীবনের শুরুতেই যদি বাচ্চাদের আনন্দকে গুরুত্ব দেওয়া হয়, তাহলে তাদের লেখাপড়ার প্রতি আর কোন অনিহা থাকবে না।

বিদ্যালয়ের ৫০ জন্য শিক্ষার্থীকে ফুল দিয়ে বরণ করে নিয়েছি। তাই কোমলমতি শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার প্রতি মনোযোগ বৃদ্ধি করার জন্যই এই নবীন বরণ অনুষ্ঠানের উদ্যোগ গ্রহণ করেছি।

-শেখ রিয়াজ আহম্মেদ নাহিদ