ছেলেধরা। প্রতীকী ছবি

পিরোজপুরের কাউখালীতে সর্বত্র চলছে ছেলে ধরা (কল্লা কাটা) আতঙ্ক। গত ২ সপ্তাহ যাবত পাড়া-মহল্লা, ছাত্র-ছাত্রী এবং অভিভাবকদের মধ্যে এই আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। আতঙ্কে গ্রামের শিশুরা এখন বাড়ি থেকে বের হতে ভয় পাচ্ছে।

জানা গেছে, কাউখালী উপজেলার জয়কুল কাঠালিযা গ্রামে ছেলে ধরা সংক্রান্ত ঘটনা ছড়িয়ে পড়লে শিশুরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। কয়েকদিন পূর্বে পাশ^বর্তী রাজাপুর উপজেলাসহ কাউখালীর জয়কুল, আইরন, বিড়ালজুড়ী, গ্রামের কয়েকটি মসজিদের মাইকে ঘোষণা করা হয়, ছেলে ধরারা ছেলে-মেয়ে ধরে নিয়ে যাচ্ছে।

আপনারা সন্তানদের সাবধানে রাখবেন। একা একা কোথাও যেতে দিবেন না। শিশুদের ধরে নিয়ে কল্লা কাটা হচ্ছে।

এভাবেই ছেলে ধরা আতঙ্কে বিদ্যালয়ে সন্তানদের একা ছাড়ছেন না বাবা মায়েরা। আবার সময়ের অভাবে অনেক অভিভাবকরা সাথে যেতে না পারায় সন্তানকেও স্কুলে পাঠাচ্ছেন না। ফলে বিদ্যালয় গুলোতে শিশু শিক্ষার্থীদের সংখ্যা কমে গেছে।

ধরান করা হয়, সম্প্রতি শিশু অপহরণ ও হত্যার বেশ কিছু ঘটনায় শিশু নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ-উৎকন্ঠায় অভিভাবকরা। কতিথ ছেলে ধরা আতঙ্কে ভুগছে সবাই।

এ ব্যাপারে কাউখালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, ‘ছেলে ধরা খবরটি গুজব এবং সম্পূর্ণ মিথ্যা। বিগত দুই মাসে এ সংক্রান্ত কোন অভিযোগ থানায় আসে নাই। কিছু দুষ্ট প্রকৃতির লোক মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্য চারদিকে এ খবর ছড়াচ্ছে। যারা এ গুজব ছড়াচ্ছে তাদের সনাক্ত করার জন্য আমরা তৎপর আছি।

গুজব রটনাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেখ রিয়াজ আহাম্মেদ নাহিদ/পিরোজপুর