পাসপোর্ট অফিসে দুদকের অভিযান (বামে) ডানে লেখক-সাংবাদিক আকরামুল ইসলাম।

সরকারি দপ্তরে ঘুষ দুর্নীতি আর অনিয়মের অভিযোগ পুরনো কথা। ঘুষ দেয়াই নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে সেখানে। আর সাধারণ অসচেতন মানুষ ধরেই নেয় টাকা দিলেই কাজটা ভালো হয়। টাকা না দিলে কাজ হয় না। তাই কোন কাজ করতে গেলেই সরকারি ফিসের বাইরে উৎকোচ ফি পকেটে নিয়েই বের হন সাধারণ মানুষরা।

সাতক্ষীরা পাসপোর্ট অফিসে হঠাৎ দুর্নীতি দমন কমিশনের কর্মকর্তাদের অভিযান। হুড়োহুড়ি করে দৌঁড়ে পালায় বাইরে থাকা মিষ্ট ভাষায় মধ্যস্থতাকারীরা আর তিক্ত ভাষায় দালালরা। যাদের মাধ্যমে অফিসের ভিতরে চেয়ারে বসা কর্তা ব্যক্তিরা টাকা কালেকশান করেন। সাতক্ষীরা পাসপোর্ট অফিসের এটা পুরনো ঘটনা নয় বা এমনও নয় যে দুর্নীতি আর ঘুষ গ্রহণের অভিযোগের বিষয়টি এই প্রথম শুনছে সাতক্ষীরাবাসী।

দুদক কর্মকর্তাদের অভিযানকালে আটক হয় এক মধ্যস্থতাকারী (দালাল)। ভ্রাম্যমান আদালতে তাকে দুই হাজার টাকা জরিমানা ও মুচলেকার মাধ্যমে মুক্তি দেওয়া হয়। শাস্তি বা জরিমানা কমবেশী এটা মূল কথা নয়। মূল কথা এদের শাস্তি বা আইনের আওতায় এনে লাভ কি ? তাদের ধরে লাভ কি? ভিতরে কর্তার চেয়ারে থাকা ব্যক্তি যদি দুর্নীতিমুক্ত না হন তবে দালালদের শাস্তি কতটা অফিসকে দুর্নীতিমুক্ত করবে ? একজন জেলে থাকলে নতুন আরেকজন তার ভূমিকায় অবতীর্ণ হবে।

পাসপোর্ট করতে সরকারি ফিস ৩৪৫০ টাকা। নেওয়া হয় দুই হাজার টাকা অতিরিক্ত। যা দালালদের মাধ্যমে চলে যায় মূল কর্তাদের পকেটে। সাধারণ মানুষ এখন দুই হাজার টাকা অতিরিক্ত নিয়েই পাসপোর্ট অফিসে পাসপোর্ট করতে যান। দালাল না ধরলে নানান ভুল ধরে জমা দেওয়া কাগজটি ফেরৎ দিয়ে দেন জমাকারী। দালালদের মাধ্যমে গেলেই সরল ভাষায় বলা চলে, সব যেন ঠিকঠাক। এটাই চিত্র সাতক্ষীরা পাসপোর্ট অফিসের।

৮ এপ্রিল সোমবার দুপুরে দুদকের অভিযানের পর হৈ চৈ মিডিয়া পাড়ায় আর পাসপোর্ট অফিসের কর্তাদের মাঝে। মঙ্গলবার সকাল থেকেই আবার সেই পূর্বের অবস্থায় ফিরে যাবে না এটা নিশ্চয়তা কেউ দিতে পারবেন কি ? কেননা এর আগেও পাসপোর্ট অফিসে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চলেছে। দিনশেষে পরদিন চিত্র একই।

প্রয়োজন দায়িত্বে থাকা কর্তা ব্যক্তির দূর্ণীতিমুক্ত থেকেই সেবা প্রদান করা। আত্নশুদ্ধির মধ্য দিয়ে ঘুষ দূর্ণীতিকে গুডবাই বলা। তবেই একটি প্রতিষ্ঠাণ হয়ে উঠবে দূর্ণীতিমুক্ত, ঘুষ মুক্ত। সেদিন আর দৌঁড়ে দালাল ধরে শাস্তি দেওয়ার প্রয়োজন পড়বে না।

আকরামুল ইসলাম, সাংবাদিক, সাতক্ষীরা