শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের ভালোবাসা এবং ফুলেল শ্রদ্ধায় সিক্ত হলেন কবি ও স্থপতি রবিউল হুসাইন। ২৭ নভেম্বর বুধবার সকাল ১১টায় কবি রবিউল হুসাইনের মরদেহ শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য আনা হয়।

কবি রবিউল হোসাইনের মরদেহে সর্বপ্রথম ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ এবং আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম।এরপর পর্যায়ক্রমে কবি রবিউল হুসাইনের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল, কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসর, কচি-কাঁচার মেলা, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন, বাংলাদেশ ব্যাংক ঢাকা জাদুঘর, জাতীয় জাদুঘর, কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার, চারুকলা অনুষদ, গণতন্ত্র অধিদপ্তর, আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ, মহিলা পরিষদ, বাংলা একাডেমিসহ বিভিন্ন সংগঠন।

এছাড়া ব্যক্তিগতভাবে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন নাট্যব্যক্তিত্ব মামুনুর রশিদ, রামেন্দ্র মজুমদার, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, কবি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি আব্দুস সামাদ, অর্থনীতিবিদ ইব্রাহিম খালেদ, কথাসাহিত্যিক মোহিত কামাল, খুশি কবির, কবি রবীন্দ্র গোপ, আওয়ামী লীগ নেতা নুহ আলম লেলিন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম প্রমুখ।

শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে কবি ও স্থপতি রবিউল হুসাইনের মরদেহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে জানাজার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে জানাজা শেষে কবি রবিউল হোসেনের মরদেহ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে নিয়ে যাওয়া হবে। এরপর বনানীর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হবে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

আজকের পত্রিকা/সিফাত